(দিনাজপুর২৪.কম)  মাধ্যমিক পরীক্ষায় একাধারে ৪৬ বার ফেল করেছেন ভারতের রাজস্থানের আলওয়ার জেলার অশীতিপর এক বাসিন্দা। তার নাম শিবচরণ যাদব। বর্তমানে তার বয়স ৮১ বছর। সবশেষ এবারও তিনি ফেল করলেন। আরও এ নিয়েই মাধ্যমিকে পর পর ৪৬ বার ব্যর্থ হলেন তিনি। তবু দশম শ্রেণির পরীক্ষায় বসার উত্সাহে ভাটা পড়েনি তার। মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ না হলে বিয়েও করবেন না বলে স্থির করেছেন। জীবনভর এ শপথ অক্ষরে অক্ষরে পালন করে চলেছেন তিান। এতবার পরীক্ষায় ব্যর্থ হলেও চেষ্টা চালিয়ে যেতে একনও বদ্ধপরিকর তিনি। ২০১৪ সালের পরীক্ষায় প্রত্যেকটি বিষয়ে ফেল করেছিলেন শিবচরণ। এবারের ফল অবশ্য তুলনায় ভালো, কারণ সমাজ বিজ্ঞানে ১০০-র মধ্যে ৩৪ নম্বর পেয়ে উতরে গিয়েছেন। এই একটিমাত্র বিষয়েই এই বছর পাশ-নম্বর তুলতে পেরেছেন শিবচরণ। এছাড়া হিন্দিতে ৩, ইংরেজিতে ০, অঙ্কে ৯ এবং সংস্কৃতে ৭ নম্বর পেয়েছেন তিনি। তবে ফেল করলেও নিয়ম করে প্রতি বছর রাজস্থান মধ্যশিক্ষা পর্ষদের দশম শ্রেণির পরীক্ষায় বসেন বৃদ্ধ।
এই অদম্য উত্সাহের রহস্য কী? শিবচরণ জানিয়েছেন, এখন আর বিয়ে করার প্রশ্ন নেই। তাই বিশ্বরেকর্ড গড়ার উদ্দেশেই পরীক্ষায় অবতীর্ণ হই। আশি পেরিয়ে অশক্ত হয়েছে শরীর। জরার থাবায় ক্ষীণ হয়েছে দৃষ্টিশক্তি, সাড় হারিয়েছে আঙুল। তবু পরীক্ষার হলে ফি বছর হাজিরা দিতে যান তিনি। প্রত্যেক বছরের মতো এবারও ফল প্রকাশের পর জানিয়েছেন, পরের বছর আরও খেটেখুটে পরীক্ষার জন্য তৈরি হবেন। – সূত্র : এই সময় -ডেস্ক