(দিনাজপুর২৪.কম) দেশের বিভিন্ন স্থানে মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযানে মঙ্গলবার রাতেও কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নয় জেলায় আরো ১৪ জনের নিহতের কথা জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ নিয়ে গত ১৮ দিনে ১৩২ জন নিহত হলেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ঢাকায় তিন জন এবং কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, নড়াইল, সিরাজগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গায় একজন করে নিহত হয়। এছাড়া যশোরে দুই এবং মাগুরায় তিন মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধারেরর কথা জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুলিশের দাবি, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্য ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তারা নিহত হয়।  র‌্যাব-পুলিশের ভাষ্য, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহতরা মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বেশির ভাগের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি, মাদক বিরোধী অভিযানে গেলে তাদের লক্ষ্য করে দুর্বৃত্তরা গুলি ছুড়লে পাল্টা গুলিবিনিময়ে এবং মাদক ব্যবসায়ী গ্রুপের মধ্যে গুলিবিনিময়ের ঘটনায় এসব নিহতের ঘটনা ঘটে। এসময় অস্ত্র, গুলি ও বিভিন্ন মাদক উদ্ধার করা হয়েছে। গত ১২ মে থেকে ইউএনবি বার্তা বিভাগে আসা খবর অনুযায়ী সারাদেশে চলমান মাদক বিরোধী অভিযানে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনায় মোট ১৩২ জন নিহত হলেন। যাদের বেশির ভাগকেই ‘মাদক ব্যবসায়ী’ হিসেবে দাবি করছে র‌্যাব-পুলিশ। এদিকে মাদক বিরোধী অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ প্রতিদিন নিহতের ঘটনায় মানবাধিকার সংগঠন, রাজনৈতিক দলসহ নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তারা আইনের আওতায় এনে মাদক ব্যবসায়ী, পাচার ও সরবরাহকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়ার কথা বলছেন। বিশ্লেষকদের মতে, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এ ধরনের নিহতের ঘটনার মধ্য দিয়ে মাদকের আগ্রাসন থামবে না। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত বিভিন্ন জেলা থেকে ইউএনবি প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন:

ঢাকা: ভাষানটেক দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ এলাকায় ভোররাতে র‌্যাবের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সাভারের মাদক ব্যভসায়ী আতাউর রহমান ওরফে আতাসহ (৪৬ তিনজনের নিহতের কথা জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যাব সদর দপ্তরের তথ্য মতে, অভিযান শেষে কয়েখটি আগ্নেয়াস্ত্র ও বিপুল সংখ্যক ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধা করা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহত অপর দুইজনের পরিচয় জানাতে পারেনি র‌্যাব।

গুলিবিদ্ধ তিনজনকে প্রথমে মিরপুর আধুনিক হাসপাতালে এবং পরবর্তী সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার:  কক্সবাজারে নগরের সমুদ্র সৈকতের কবিতা চত্বর রাত ১টার দিকে এলকায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে মো. মুজিবুর রহমান (৪২) নামে এক ব্যক্তির নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

কক্সবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফরিদ উদ্দিন খন্দকার জানান, র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নেত্রকোনা জেলার বাসিন্দা মুজিবুর নিহত হয়। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদকের মামলা রয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে ছয় হাজার ইয়াবা, একটি ওয়ান শ্যুটার গান, তিন রাউন্ড গুলি ও দুটি গুলির খোসা উদ্ধার করার কথা জানায় এই পুলিশ কর্মকর্তা।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরের পলোগ্রাউন্ড এলাকায় রাত সাড়ে ১২টায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নগরের মোহাম্মাদ আলীর ছেলে মোহাম্মাদ ইসহাক ওরফে ওমর ফারুক (৩৫) নামে এক মাদক বিক্রেতার নিহতের কথা জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যবের সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান জানান, ঘটনাস্থল থেকে চার হাজার ইয়াবা, একটি ওয়ান শ্যুটার গান ও ১০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

কুমিল্লা:  জেলার বুড়িচং উপজেলার লড়িবাগ এলাকায় রাত পৌনে ১টার দিকে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোছমত আলী (৪০) নামের একজনের নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত রোছমত বুড়িচংয়ের ছয়গ্রাম এলাকার মৃত আলী আহাম্মদের ছেলে। তার বিরোদ্ধে ৭টি মাদক মামলা রয়েছে জানিয়ে বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ১ রাউন্ড কার্তুজসহ একটি পাইপগান ও ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন।

নড়াইল:  নড়াইল-লোহাগড়া সড়কের সদর উপজেলা আউডিয়া ইউনিয়নের মালিবাগ মোড়ে বুধবার ভোরে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সজিব নামে একজনের নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

নড়াইলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি শর্টগান, একটি ধারালো অস্ত্রসহ বিভিন্ন প্রকারের মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা: শহররের পৌর এলাকার সাতগাড়ি গ্রামের মাঠে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তানজিল আহমেদ (৩০) নামে একজন নিহত হয়। তিনি পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বলে জানানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, নিহত তানজিল চুয়াডাঙ্গার শহরতলী দৌলাতদিয়াড় গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় ১২টি মামলা রয়েছে।

পরবর্তীতে ঘটনাস্থল থেকে একটি শ্যুটার গান, চার রাউন্ড গুলি ও এক বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয় বলে জানানো হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল খালেক জানান, তানজিল এলাকার মোস্ট ওয়ানটেন্ড অপরাধী ও মাদক ব্যবসায়ী।

যশোর: যশোরের বেনাপোল বন্দর এলাকার বড় আচরায় বুধবার ভোর রাত ৪টার দিকে মাদক ব্যবসায়ীদের দুই গ্রুপের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ।

নিহত দুজনের মধ্যে একজন ভবেরপাড় গ্রামের শাহজাহানের ছেলে লিটন মিয়া (৪২) হলেও অপর জনের নাম পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ।

বেনাপোল বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অপূর্ব হাসানের ভাষ্য, ঘটনাস্থল থেকে ১০ কেজি গাঁজা, একটি বন্দুক, দুটি বুলেট এবং কয়েকটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

মাগুরা:  সদর উপজেলার বাটিকাডাঙ্গায় রাত ১টার দিকে মাদক ব্যবসায়ীদের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন মাদক ব্যবসায়ী নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতেরা হলেন, ভাইয়ানা গ্রামের মহিউদ্দিন চপদারের ছেলে বাচ্চু চপদার (৫৫), ইসলামপুর পারার রাজ্জাক ঢালীর ছেলে রায়হান ঢালী (২২) এবং নতুন বাজার এলাকার খোকন অধিকারীর ছেলে কিশোর অধিকারী (৪৩)।

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলামের ভাষ্য, ঘটনাস্থল থেকে ৩২০ গ্রাম হেরোইন, এক কেজি গাঁজা, ছয় বোতল ফেন্সিডিল, ছয়টি বুলেট এবং আটটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আশান হাবীব (৪৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীর নিহতের কথা জানিয়েছে র‌্যাব। নিহত আশান হাবীব উপজেলার কামারখন্দ হাটপাড়া গ্রামের ইজার উদ্দিনের ছেলে।

র‌্যাব-১২ সিরাজগঞ্জ ক্যাম্পের কমান্ডার সাকিবুল ইসলাম খানের ভাষ্য, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম পাড় সংযোগ মহাসড়কের ঝাঐল ওভার ব্রিজের পাশে একটি বাগানের ভিতরে রাত ১টায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়।

ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শ্যুটারগান, এক রাউন্ড গুলি, ২০ বোতল ফেনসিডিল ও এক হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধারের কথা জানিয়ে তিনি বলেন, নিহত হাবীবের বিরুদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় সাতটি মামলা রয়েছে। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনায় র‌্যাবের তিন সদস্য আহত হয়েছে বলে জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।-ইউএনবি

-ডেস্ক রিপাের্ট