হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ

এম.এ.সালাম (দিনাজপুর২৪.কম) উত্তরের জনপদ দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলা ভারত সীমান্ত ঘেষা হিলি নামে পরিচিত। অত্র হিলিতে একটি রেলওয়ে স্টেশনসহ স্থল-বন্দর রয়েছে। স্থলবন্দরের কারনে উত্তরবঙ্গের ইহা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থান। অত্র স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন অনেক পণ্য আমদানী ও রফতানী হয়ে থাকে। ব্যবসা কেন্দ্রিক স্থান হিসাবে হিলিতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিভিন্ন পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের এর জন্য ব্যবসায়ীগণ আসা-যাওয়ার কারণে প্রচুর যানবাহন চলাচল করে। বিগত সময়ে হিলি চোরাচালানের রুট হিসাবে খুবই পরিচিত ছিল। তারই ধারাবাহিকতায় এবং সীমান্ত এলাকার কারনে অত্র উপজেলায় অধিক পরিমানে মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদক সেবীদের অভয় অরন্য পরিনত হয়। বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা এবং প্রশাসনের দৃঢ়তার কারনে মাদক সংক্রান্তে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা করায় বর্তমান হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ মাদকের বিরুদ্ধে দিন-রাত নিরলসভাবে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। মাদক অঞ্চল হিসেবে পরিচিত হিলি এখন অনেকটা মাদক শূন্য। উপজেলার বিভিন্ন মাদক স্পট গুলোতে তথ্য নিয়ে জানা যায়, তাদের মধ্যে এখন পুলিশি আতঙ্ক বিরাজ করছে। বর্তমান থানা পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযানের পাশাপাশি বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য কাউন্সিলিং অব্যাহত রেখেছেন। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, এভাবে পুলিশি অভিযান অব্যাহত থাকলে মাদক অভয়ারণ্য হিসেবে পরিচিত হিলি (হাকিমপুর) এলাকা সম্পুর্ণ মাদক শূন্য হবে। অপরদিকে, হাকিমপুর থানা সূত্র জানায়, গত ফেব্রুয়ারী মাসে হাকিমপুর থানা পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানের পরিসংখ্যানে, হাকিমপুর থানা পুলিশ ২৩ টি মামলায় মোট ৫৩ জন ব্যক্তিকে মাদক সহ গ্রেফতার করা হয় এবং তাদের নিকট থেকে ৪৫১ (চারশত একান্ন) বোতল ফেন্সিডিল, ১১৭০ গ্রাম গাঁজা, ২১৬ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২৫ গ্রাম হিরোইন এবং ৪০ লিটার চোলাইমদ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া গত ফেব্রুয়ারী মাসে, গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল মূলে মোট ১০১ টি ওয়ারেন্ট নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এবং মাদক সেবন করার অপরাধে থানা পুলিশ ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সমন্বয়ে গঠিত ভ্রাম্যমান আদালতে ৮ টি ঘটনায় মোট ২৬ জন ব্যক্তিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়েছে। সূত্র আরো জানায়, দিনাজপুরের (হাকিমপুর) হিলি স্থল-বন্দর এলাকায় প্রতিনিয়ত যানজটের কারনে স্কুল কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রী, অ্যাম্বুলেন্সসহ পোর্ট এলাকায় গমনাগমনকারী জনসাধারন জনদুর্ভোগে প্রতিনিয়ত অতিষ্ট থাকতো। বর্তমান অফিসার ইনচার্জ যোগদানের পরপরেই হিলি স্থল-বন্দর, ট্রাক মালিক গ্রুপ এবং কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে উদ্দোগ গ্রহন করে অস্থায়ী ট্রাক টার্মিনাল প্রতিস্থাপন করে নজির বিহীন জনদুর্ভোগ কমিয়ে যানবাহনের বিশৃংখলা কমিয়ে আনায় এলাকাবাসীর নিকট ভূয়োসী প্রশংসীত হন। ওসি রাজ্জাক ব্যক্তিগত উদ্যোগে পরিচ্ছন্ন সমাজ গড়তে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন এবং থানা কম্পাউন্ডে পূর্বেকার আগাছাসহ যত্রতত্র ফেলানো আবর্জনা পরিষ্কার করে থানা কম্পাউন্ডে ফুলের বাগান তৈরি করে উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরসহ সর্বসাধারণের নিকট প্রশংসিত হয়েছেন।

হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক আকন্দ দিনাজপুর২৪.কমকে বলেন, আমরা সকলে যার যার অবস্থান থেকে সঠিকভাবে আন্তরিকতার সহিত নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ, উন্নত এবং সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ খুব শ্রীঘ্রই দেখতে পাবো। মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার এই স্লোগানকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে হাকিমপুর থানা পুলিশ নারী, শিশু, বয়ষ্ক ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেস্ক চালু করে সেবা অব্যাহত রয়েছে।