মোঃ ইউসুফ আলী, (দিনাজপুর২৪.কম) অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা বলেছেন, মাদকাসক্তি বর্তমান সময়ের এক জটিল ও বহুমাত্রিক সমস্যা।  এটি একটি বিশ্বজনীন সামাজিক সমস্যা হিসেবে আর্বিভূত হয়েছে। বলাবাহুল্য মাদকাসক্তির আগ্রাসন ব্যক্তি জীবনকে করছে বিপর্যস্ত, পরিবার ও সামাজিক প্রতিবেশ-পরিবেশ মুক্ত করছে অনাকাঙ্খিত অস্থিরতা। জাতির ভবিষ্যত কর্ণধার ও দেশের সম্ভাবনাময় তরুণ সমাজের একাংশ আজ মাদক ঝুঁকির কেন্দ্রে অবস্থান করছে।  কাজেই সমাজের সামগ্রিক ও পরিকল্পিত উন্নয়ন ছাড়া সমাজ থেকে মাদক নির্মুল কোনভাবেই সম্ভব নয়। মাদকমুক্ত সুস্থ ও সুন্দর সমাজ বির্নিমানে সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি মাদক বিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই। সারা বিশ্বের ন্যায় ২৬ জুন মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস-২০১৫ উপলক্ষে মাদক বিরোধী র‌্যালী শেষে জিলা স্কুল অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এডিসি জেনারেল উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। জেলা প্রশাসন ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর দিনাজপুর আয়োজিত শুক্রবার সকাল ১০টায় দিনাজপুর ইন্সটিটিউট প্রাঙ্গণ থেকে মাদক বিরোধী র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জিলা স্কুলে গিয়ে সমাপ্ত হয়। আসুন, আমরা মাদক মুক্ত অর্থবহ জীবন, সমাজ ও সত্তার বিকাশ নিশ্চিত করি এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দিনাজপুর জিলা স্কুল অডিটোরিয়ামে আয়োজিত আলোচনা সভায় সিনিয়র জেলা তথ্য অফিসার আবুল কালাম মোহাম্মদ শামসুদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি ও শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর দিনাজপুর এর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শহিদুল মোন্নাফ কবীর, অশ্রু মাদকা সক্তি নিরাময় কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক কাজী জাফর উল্লাহ। আলোচনা সভাটি সঞ্চালনায় ছিলেন দিনাজপুর কারেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রাহিনুর ইসলাম। এর আগে দিনাজপুর ইন্সটিটিউট প্রাঙ্গণ থেকে মাদক বিরোধী র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন এডিসি জেনারেল মোঃ আবু রায়হান মিঞা ও পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমিন। র‌্যালীতে অংশ নেয়  বিজিবি সেক্টর সদর ও ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন কর্মকর্তাবৃন্দ, মিশন রোডস্থ দিনাজপুর ক্লাব’র সকল কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ, মাদকা সক্তি নিরাময় কেন্দ্র অশ্রু, নতুন ভুবন, দিনাজপুর ডিআইসি, বাংলাদেশ ইয়ুথ ফাস্ট কনসার্ন বিরামপুরের কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম, মোঃ কাজী নাঈম, সাব ইন্সপেক্টর আব্দুস সামাদ চৌধুরী প্রমুখ।