(দিনাজপুর২৪.কম) উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার বোলিনাসের অ্যাগাটে তীরে ভেসে আসা নীল তিমির দেহ ঘিরে এখন উৎসুক জনতার ভিড়। গত শুক্রবার ৭৯ ফুট লম্বা ওই স্ত্রী তিমির দেহটি ভেসে আসে। তিমিটি ভেসে আসতেই তীরে থাকা পর্যটক, স্থানীয় বাসিন্দা এবং মৎস্যজীবীদের মধ্যে সেটিকে দেখার জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায়।

খবর পেয়ে বিশেষজ্ঞরা সেখানে যান। তারা তিমির দেহটি পরীক্ষা করেন। তিমির দেহের বাঁদিকে ভোঁতা জিনিসের আঘাত রয়েছে। শনিবার তীরেই তিমির দেহের নেক্রোস্কোপি হয়। তারপর প্রাণীটির রক্ত এবং টিস্যুর নমুনা সংগ্রহ করেন বিজ্ঞানীরা।

প্রাথমিক পরীক্ষার পর তাঁদের অনুমান, কোনও জাহাজের সঙ্গে ধাক্কা লাগে তিমিটির। তার ফলে ওই আঘাত। তিমিটির পাঁজরের ১০টি হাড় এবং লেজ থেকে শরীরের নিম্নাংশের ১০টি ভার্টিব্রা ভেঙে গিয়েছে। পুরনো ডেটাবেস থেকে পাওয়া তথ্য এবং ছবি দেখে তাকে বিজ্ঞানীরা চিহ্নিত করতে পেরেছেন। ১৯৯৯ সাল থেকে প্রায় ১১ বছর ধরে স্যান্টা বারবারার বিভিন্ন অঞ্চলে তিমিটিকে দেখা গিয়েছিল।

তীরে পড়ে থাকা তিমির পচে যাওয়া দেহ থেকে ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। পাখি এবং সমুদ্রের অন্য উভচর জীবের খাদ্য এখন সেটি। কিন্তু তা সত্ত্বেও এত কাছ থেকে নীল তিমি দেখার সুযোগ হাতছাড়া করতে নারাজ উৎসুক জনতা। তাই আপাতত অ্যাগাটে তীরে পর্যটক, স্থানীয় বাসিন্দা, বিজ্ঞানী মিলিয়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। -ডেস্ক