(দিনাজপুর২৪.কম) ডেরা সচ্চা সওদায় পুলিশি অভিযান একের পরে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে ধর্ষণ মামলায় ২০ বছর সাজাপ্রাপ্ত ভারতের হরিয়ানার বিতর্কিত ধর্মগুরু বাবা গুরমিত রাম রহিম সিংহ সম্পর্কে। এবারে রহস্য ঘনিভূত হয়েছে একটি স্কিন ব্যাংককে ঘিরে। ডেরা সচ্চা সওদার মধ্যে থাকা এ স্কিন ব্যাংক সিল করে দিয়েছে পুলিশ।

ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, শনিবার তল্লাশি দলের স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুসন্ধানকারীরা ডেরার হাসপাতালে অভিযান চালান ও বিনা লাইসেন্সে চালু স্কিন ব্যাংকটিকে সিল করে দেন।

প্রসঙ্গত, স্কিন ব্যাংক বিষয়টি অনেকটা ব্লাড ব্যাঙ্কের মতো। এখানে মরদেহের ত্বক সংরক্ষিত রাখা হয়। এই ত্বক সাধারণত পুড়ে যাওয়া অথবা অ্যাসিড অ্যাটাকে আক্রান্ত মানুষের ত্বক প্রতিস্থাপনে ব্যবহৃত হয়। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে এই স্কিন ব্যাংক উদ্বোধন করা হয়েছিল। রাম রহিমের দাবি, এটি উত্তর ভারতের প্রথম স্কিন ব্যাংক। এখানে যে কোনো ব্যক্তি দেহদানের মতো তার ত্বক দান করতে পারতেন।

সতনাম স্পেশালিটি হসপিটালে স্কিন ব্যাংকটি ঘটা করে উদ্বোধনের পর রাম রহিম জানিয়েছিলেন, এরপরে তিনি একটি বোন ব্যাংক গড়ে তুলবেন।

স্কিন ব্যাংকে ঠিক কতোটি মৃতদেহ জমা পড়েছিল এবং তাদের নিয়ে কী করা হয়েছিল, তার কোনো হিসেব নেই। এমনকি স্কিন ব্যাংকটির কোনো লাইসেন্সও ছিল না। তাই মরদেহের চামড়া নিয়ে বাবা রামরহিম কী করতে- এ রহস্যের কিনারা করতে তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। -ডেস্ক
সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।