(দিনাজপুর২৪.কম) ভোলার মনপুরা উপজেলার হাজির হাট বাজারে পুলিশের গুলিতে সাংবাদিক, শিশু ও ব্যবসায়ীসহ ৩০জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।  বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ওই বাজারে অবৈধ দোকান উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ বাধে। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড শটগানের গুলি ছোঁড়ে পুলিশ। এতে ৩০জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে কয়েকজন হলেন, দৈনিক ভোরের পাতার স্থানীয় প্রতিনিধি নজরুল ইসলাম মামুন, ব্যবসায়ী সোয়েব, মো. ইব্রাহীম, আবু তাহের, শরিফ, নুরুউদ্দিন, তরিকুল ইসলাম, আরিফ, হারুন, কবির, নাহিদ, হারুন, রাকিব, হোসেন, লিটন ফরাজী, মোসলেহ উদ্দিন, জামাল নুরুউদ্দিন, নুরইসলাম, কুটি মাঝি, আবদুর রহমানের নাম পাওয়া গেছে। অপরদিকে ব্যবসায়ীদের ইট-পাটকেল নিক্ষেপে আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, ওসি শাহীন খান, এএসআই প্রদীপ, পুলিশ সদস্য জুনায়েদ, আরিফ, জসিম, আবদুল হালিম, নাইম।

এবিষয়ে বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন জানান, ‘বিনা নোটিশে পুলিশ তিন ব্যবসায়ীর ফলের দোকান উচ্ছেদ করার সময় মারধরের ঘটনায় ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ রেখে মিছিল করে। পরে পুলিশ বিনা উসকানিতে ব্যবসায়ীদের উপর বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি করে। এতে অর্ধশতাধিক ব্যবসায়ী আহত হন। ‘

মনপুরা থানার ওসি শাহীন খান বলেন, ‘হাজির হাট বাজারের রাস্তার উপর অবৈধ ফলের দোকান উঠাতে যাই। পরে ব্যবসায়ীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে কয়েক রাউন্ড শটগানের গুলি করা হয়। ‘ -ডেস্ক