(দিনাজপুর২৪.কম) স্বল্পোন্নত বা এলডিসি দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশ বের হয়ে গেলেও আপাতত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) তাদের সহযোগিতার ক্ষেত্রে তেমন কোনো পরিবর্তন আনবে না। এই মুহূর্তে নীতিগত কোনো পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত এডিবির নেই বলেও জানান এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) প্রেসিডেন্ট তাকেহিতো নাকাও। তিনি বলেন, ২০৪১ সালে উন্নত দেশে উন্নীত হওয়া সহজতর নয়। সেটা হতে হলে মাথাপিছু আয় ৬ হাজার ডলার, জিডিপি প্রবৃদ্ধিও হার দু’অঙ্কের ঘওে বা বর্তমানে যা আছে তার দ্বিগুণ করতে হবে। পাশাপাশি সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগ বৃদ্ধি, অবকাঠামো উন্নয়ন, রাজস্ব আহরণ বাড়াতে হবে।

তিনদিনের বাংলাদেশ সফর শেষে আজ দুপুরে আগারগাওস্থ এডিবির স্থানীয় অফিসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেন। এ সময় এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টরসহ অন্য কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

তাকেহিতো নাকাও বলেন, এরই মধ্যে বাংলাদেশ নিম্ন মধ্য আয়ের দেশের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। তবে কিছু দিনের মধ্যে যদি মধ্য আয়ের দেশে পৌঁছে যায়, তাহলে সহযোগিতা আগের মতোই থাকবে।

বক্তব্যেও শুরুতেই প্রেসিডেন্ট তাকেহিতো বাংলাদেশে এডিবি’র সহযোগীতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেণ। এডিবির ২০১৬ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে আট বিলিয়ন ডলারের সাহায্য দেয়ার আগের প্রতিশ্রুতির কথা আবারো তিনি তুলে ধরেন। যা আগের ২০১১ থেকে ২০১৫ সালের চেয়ে ৬০ শতাংশ বেশি। এছাড়া, জ্বালানি খাতে অবকাঠামো উন্নয়ন, পরিবহন, শিক্ষা, পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন খাতে সহায়তা করে থাকে তারই ধারাবাহিকতাগুলো তুলে ধরেন তাকেহিতো। -ডেস্ক