-সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) গাজীপুরের নলজানি এলাকা থেকে ভূয়া সাংবাদিকসহ অপহরণকারী চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১। এসময় অপহৃত ভিকটিম পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তা হারুন অর রশীদকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা হলেন, শাহীন আলম, মো. সোহেল, সঞ্জয় কুমার দাস, সোহেলের স্ত্রী সাহিদা বেগম ও সাবিনা আক্তার বর্ষা।

শুক্রবার দুপুরে র‌্যাব-১ এর পোড়াবাড়ি ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, গত ২৩ অক্টোবর পল্লী বিদ্যুৎ কর্মকর্তা হারুন অর রশীদকে শিববাড়ি এলাকা থেকে অজ্ঞাত ৭-৮জন অপরহরণকারী অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুজি করে হারুন অর রশীদের সন্ধান না পেয়ে সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী দায়ের করেন। অপরহরণকারীরা হারুন অর রশীদকে আটকে রেখে মারধর করে এবং ৫ লাখ টাকার স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়।

এক পর্যায়ে ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার মোবাইল ফোনে ভিকটিমের স্ত্রীর কাছে হত্যার হুমকি দিয়ে মুুক্তিপণ হিসেবে ৫ লাখ টাকা দাবি করে। উপায়ান্তর না দেখে হারুনের স্ত্রী বিকাশের মাধ্যমে ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ পরিশোধ করেন এবং ঘটনাটি র‌্যাবকে জানান। পরে র‌্যাব সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে নলজানি এলাকার পালের মাঠের স্থানীয় ডা. আব্দুল আউয়ালের বাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে ভিকটিম হারুন অর রশীদকে উদ্ধার এবং ৫ অপহরণকারীকে আটক করে।

এসময় অপহরণকারীদের হেফাজত থেকে একটি ডিজিটাল ক্যামেরা, ৬টি মোবাইল ফোন সেট ও তিনটি লিখিত স্ট্যাম্প উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা অপরহরণকারী চক্র এবং শাহীন আলম নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে নানা অপকর্ম করতো বলে র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে।

গ্রেফতারকৃত অপহরণকারীদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছে তারা গাজীপুর জেলার প্রধান সংঘবদ্ধ অপরহণকারী দলের সক্রিয় সদস্য। তারা একে অপরের যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকা হতে বিভিন্ন ব্যক্তিকে অপহরণ করিয়া উক্ত বাসায় আটক করিয়া ভিকটিমদের ব্যাপক মারধর করিয়া হত্যার ভয়-ভিত্তি প্রদর্শক করিয়া তাদের পরিবারের কাছ থেকে বিপুল পরিমানের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। -ডেস্ক