(দিনাজপুর২৪.কম) সারাদেশে সরকারের নির্দেশেই ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে অবৈধ স্থাপনা। যাঁরা সরকারি জমি দখল করে এতদিন ভোগ করেছিলেন তাদের স্থাপনাগুলো ভেঙ্গে ফেলায় জনমতে স্বস্তি ফিরে এসেছে। দিনাজপুরে গত ২৬ নভেম্বর’১৯ তারিখে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ ৪নং নিউ টাউনে উপশহর এলাকায় অবৈধ স্থাপনাগুলো গুড়িয়ে দেয়। কিন্তু সেখানে ২টি বৈধ বাড়ি গুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সুধী মহল বলছেন, ভুলটি ইচ্ছেকৃত না অনিচ্ছাকৃত! বাড়ির মালিক বার বার বৈধ কাগজপত্র দিলেও কোন কথাই শোনেননি উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় কর্মকর্তারা। কিন্তু কেন এমন বিমাতাসুলভ আচরণ করা হল এমন প্রশ্ন করা হলে দিনাজপুর জাতীয় গৃহায়নের নির্বাহী প্রকৌশলী মোর্শেদ মাহমুদ, গোলাম কিবরিয়া, মোরশেদ আলম কেউ সদউত্তর দিতে পারেননি।
বাড়ির বর্তমান মালিক শিক্ষানোবিশ এ্যাডভোকেট মোঃ আবু বকর সিদ্দিক সুমন ও মোঃ আলাউদ্দিন এ প্রতিনিধিকে জানান, এই বাড়ির কাগজপত্র সম্পূর্ণ বৈধ। তার পরেও আমাদের কোন কাগজপত্র যাচাই না করেই আমাদের বাড়িটি কেন গুড়িয়ে দিলো জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ? তিনি আরও বলেন, আমি জেলা প্রশাসককে দরখাস্ত দিয়েছি ক্ষতি পূরণের জন্য। কিন্তু অদ্যাবদি জাতীয় গৃহায়নের উপ-পরিচালক তাজিমুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী হারিজুর রহমান, মোর্শেদ মাহমুদ, গোলাম কিবরিয়া, মোরশেদ আলম এখন পর্যন্ত আমার বৈধ বাড়ি গুড়িয়ে দেয়ার ফলে আমি ভাড়া বাসায় উঠেছি। জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষকে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক উক্ত কর্মকর্তাদের আমাদের বৈধ বাড়ির যাবতীয় প্রয়োজনীয় সু-ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয় দিনাজপুর জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বিষয়টি নিয়ে ৪নং উপশহরে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
২জন বৈধ বাড়ির মালিক তাদের বাড়ি গুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে উক্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ সহ বাড়ির ক্ষতিপূরণে জাতীয় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর নিকট আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।