(দিনাজপুর২৪.কম) ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া বাংলাদেশি ১৮ তরুণী ও ১ শিশুকে পাচারের দুই থেকে তিন বছর পর বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে ফেরত পাঠিয়েছেন ভারত সরকার। বুধবার (২৫এপ্রিল) ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের বিশেষ ট্রাভেল পারমিট প্রক্রিয়ায় বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

ফেরত আসা বাংলাদেশিরা হলেন- আয়েশা (২৭), স্বপ্না (২৪), সুলতানা (২২), রিনা (২৩), রুমা (২০), শান্তা (১৬), রুপা (১৫), হালিমা (২০), নাজমা (২৪), মারিয়া (১৭), হালিমা বেগম (১৬), ইতি (১৫), রিক্তা (১৭), আশা (২২), নাছিমা (১৭), আদুরী (২৩), ডলি (২৮), রিনা (২৫) ও আব্দুল্লাহ (২)। তাদের বাড়ি নড়াইল, বরিশাল, পিরোজপুর, বাগেরহাট, যশোর, সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলার বিভিন্ন গ্রামে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এরা সীমান্তের বিভিন্ন পথ দিয়ে গত ২ থেকে ৩ বছর আগে ভারতে পাচার হয়। ভারতের মুম্বাই শহরে এরা বাসাবাড়ির কাজ করার সময় সে দেশের পুলিশের হাতে আটক। আদালতের মাধ্যমে রেসকিউ ফাউন্ডেশন নামে একটি বেসরকারি এনজিও সংস্থা তাদের শেল্টার হোমে আশ্রয় দেয়। এরপর দু‘দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ে চিঠি চালাচালির এক পর্যায় তাদের বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে ফেরত দেয় ভারত সরকার।

রাইটস যশোরের তথ্য ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা তৌফিক আহম্মেদ জানান, দুই থেকে তিন বছর আগে পাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে এরা দেশের বিভিন্ন সীমান্ত পথে ভারতে যায়। পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে অদালতে সোপর্দ করে। সেখান থেকে ভারতের রেসকিউ ফাউন্ডেশন নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদের ছাড়িয়ে নিজেদের কাছে রাখে। পরে দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ক্রমে ট্রাভেল পারমিট প্রক্রিয়ায় তাদের ফেরত আনা হয়। -ডেস্ক