কলকাতা,(দিনাজপুর ২৪.কম):ভারতে ফের জরুরি অবস্থা জারি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)-এর নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি। তার আশঙ্কা যোগ্য নেতৃত্বের অভাবের কারণেই দেশের ফের জরুরি অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে।

আগামী ২৫ জুন দেশে জরুরি অবস্থা জারির ৪০ বছর পূর্তি হতে চলেছে। সেই উপলক্ষ্যে দেশটির একটি ইংরেজি দৈনিকে (ইন্ডিয়ান ইক্সপ্রেস)-এ সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি বলেন ‘গণতন্ত্রকে যারা ধ্বংস করতে পারে, যারা সাংবিধানিক ও আইনি বিধিনিষেধ মানে না এমন শক্তি ফের সক্রিয় হয়েছে। নেতৃত্বের মধ্যে বিচ্ছিন্নতা নেই আমি এমনটা বলছি না কিন্তু কিছু দুর্বলতা যেমন আছে, আবার দায়বদ্ধতার অভাবও দেখা যাচ্ছে। তাই দেশে যে ফের জরুরি অবস্থা ফিরে আসবে না একথা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারছি না’।

সাংবিধানিক রক্ষাকবচ থাকা সত্ত্বেও ১৯৭৫ সালে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর আমলে দেশে কিভাবে জরুরি অবস্থা জারি হয়েছে সেই প্রসঙ্গও টেনে এনে আদভানি বলেন, ‘২০১৫ সালে তখনকার মতো যথেষ্ট রক্ষাকবচ নেই’। যদিও এখন জরুরি অবস্থা জারি করা যে কারও পক্ষে খুব একটা সহজ হবে না তা জানাতেও ভোলেননি আদভানি। তবে কেন্দ্রে যখন বিজেপি সরকার ক্ষমতাসীন রয়েছে ঠিক সেসময় এরকম মন্তব্য করে মোদি সরকারের অস্বস্তিই বাড়ালেন আদভানি।

বিজেপির এমন এক শীর্ষ নেতার এই মন্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছেন আম আদমি পার্টি (আপ) প্রধান তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। ট্যুইট করে তিনি জানিয়েছেন ‘আদভানিজি একেবারে ঠিক কথা বলেছেন, যে কোন সময় জরুরি অবস্থা জারি হতে পারে। আর দিলি­ই তাদের (কেন্দ্রীয় সরকার) প্রথম লক্ষ্য’।

আদভানির বক্তব্যকে সমর্থন দিয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নিতীশ কুমারও। তিনি বলেছেন, ‘গণতন্ত্রকে ধ্বংসকারী শক্তিগুলো ফের শক্তিশালী হয়ে উঠেছে’।

দিনাজপুর ২৪.কম/নুর আলম সিদ্দিক/ডেস্ক