মো. আফজাল হোসেন (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এলাকায় দলীয় প্রভাব খাটিয়ে প্রতিপক্ষের অফিসে গিয়ে হুমকি। দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নে বৈগ্রামের মৃত মাহাতাব উদ্দিনের পুত্র মোঃ গোলাম মোস্তাফার অভিযোগে জানা যায়, একই এলাকার পাতিগ্রামের মৃত শফিকুল ইসলামের পুত্র সুফিয়ান রতন (৩২) বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির বিসিএমসিএল এর ৩য় পক্ষের আওতায় খনিতে কাজ করেন। গতকাল ৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৩টায় মোঃ গোলাম মোস্তফার বাড়িতে ভারতীয় কোম্পানী এমএ বাংলাদেশ নামে একটি ড্রিলিং কোম্পানী ভাড়া থাকেন। সেখানে উক্ত ব্যক্তি গিয়ে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রভাব খাটিয়ে মাঠের ড্রিলিংসের কাজ দিতে হবে বলে দাবি করে। কাজ না দিলে বাড়ির লোকজন ও বিদেশী কোম্পানীকে বিভিন্নভাবে গালিগালাজ ও হুমকি প্রদান করে আসছেন। প্রতিপক্ষ সুফিয়ান রতন দীর্ঘদিন ধরে দলীয় প্রভাব খাটিয়ে ঐ এলাকায় বেসরকারি খনির কাজে বাধা প্রদান করে। উপরন্তু ঐ ব্যক্তি গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে বড়পুকুরিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে একটি অভিযোগ করেন এবং তার গ্রাম থেকে লোকজন সহ লাঠিসোটা নিয়ে বৈগ্রামে গোলাম মোস্তফার বাড়িতে এসে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যান বলে গোলাম মোস্তফা জানান। এ নিয়ে তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ বিষয়ে গতকাল ৭ সেপ্টেম্বর ফুলবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান বাবুল এর সাথে মোঃ গোলাম মোস্তফা বিষয়টি অবগত করালে তিনি বলেন, এ বিষয়টি আপনাদের পারিবারিক ব্যাপার। এ নিয়ে হৈচৈ করার কোন প্রয়োজন নেই।
এদিকে বড়পুকুরিয়া নর্থ সাউথ কোল মাইনিং এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবিএম কামরুজ্জামান এর সাথে ০১৭১৩০৭৭৯০৬ মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করা হলে তিনি গোলাম মোস্তফাকে জানান, সুফিয়ান রতনকে আমরা কয়লা খনি থেকে কোন কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয় নাই। সে নিজে এ সমস্ত কাজ করে বেড়াচ্ছে। এ দায় দায়িত্ব তার। তবে তার উদ্ভুট পরিস্থিতি ও দলীয় প্রভাব খাটিয়ে খনি এলাকায় নানারকম কার্যক্রম করায় দলের ভাবমূর্তি চরম ভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে এলাকার বেশ কিছু লোক অভিযোগ করেন।