রাইসুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির কয়লা উত্তোলন বন্ধ রয়েছে গত ৮ দিন ধরে । গত ১৫ জুন থেকে উৎপাদনশীল ১২১০ নম্বর কোল ফেইজের কয়লার মজুদ শেষ হয়ে গেলে কয়লা উত্তোলন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় ১৬ জুন থেকে। বর্তমানে নতুন ১৩১৪ নম্বর ফেজ থেকে কয়লার উৎপাদন শুরুর প্রস্তুতি চলছে।  খনি সুত্র জানায়, বন্ধ হয়ে যাওয়া ১২১০ নম্বর ফেইজে ব্যবহৃত উৎপাদন যন্ত্রপাতি সরিয়ে ১৩১৪ নম্বর ফেইজে স্থাপন করে পুনরায় কয়লা উত্তোলন শুরু করতে দেড় মাস সময় লাগতে পারে। ১২১০ নম্বর কোল ফেইজ থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু হয় ২০১৭ সালের ১০ নভেম্বর। এ ফেইজ থেকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৪ লাখ ৩০ হাজার মেঃ টন কয়লা। সেখানে উৎপাদন করা হয়েছে ৫ লাখ ৮৫ হাজার মেঃ টন।
এব্যাপারে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী হাবিব উদ্দীন আহাম্মেদ বলেন, কয়লা উৎপাদন বন্ধ একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। একটি ফেইজ থেকে উত্তোলন শেষে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি সরিয়ে নতুন ফেইজে স্থাপনের জন্য ৪০/৪৫ দিন সময় লাগে। এছাড়া এসময়ে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ক্রটি বিচ্যুতি ধরা পড়লে মেরামতের জন্য বাড়তি সময়ের প্রয়োজন হয়। এজন্য কয়লার উৎপাদন সাময়িক বন্ধ থাকে। আজ ২৩ জুন পর্যন্ত খনির কোল ইয়ার্ডে ১ লাখ ৭০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা মজুদ রয়েছে বলে তিনি জানান।
বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির মহাব্যবস্থাপক (মাইনিং) এটিএম নুরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, সব প্রস্তুতি শেষ করে আগামী আগষ্ট মাসের শেষের দিকে নতুন ১৩১৪ নম্বর ফেইজ থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু করা সম্ভব হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।