(দিনাজপুর২৪.কম) ইতালিয়ান কাপের (কোপা ইতালিয়া) সবচেয়ে বেশি ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস। বুধবারের ফাইনালে নাপোলির বিপক্ষে তারাই ছিল ফেভারিট। জমজমাট ফাইনাল ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত গড়ায় টাইব্রেকারে। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালা ও ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানিলোর পেনাল্টি মিসে টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে হারে জুভেন্টাস।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে নাপোলিকে আটকে রেখেছিলেন জিয়ানিলুইজি বুফন আর বারপোস্ট। অন্যপ্রান্তে নাপোলির তরুণ গোলরক্ষক অ্যালেক্স মেরেটকে তেমন একটা পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি জুভেন্টাস। টাইব্রেকার ভাগ্যে বুফন আর কিছুই করতে পারলেন না। মেরেটই হয়ে গেলেন নায়ক। পাওলো দিবালার প্রথম শট ঠেকিয়ে দেওয়ার পর দানিলো মারলেন আকাশে উঁচিয়ে।

আর টাইব্রেকারে নাপোলি নিখুঁত, ৪ শটেই সফল তারা। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে আর পেনাল্টি নেওয়ার সুযোগই দেয়নি নাপোলি। দারুণ এক জয়ে ২০১৪ সালের পর আবারো ইতালিয়ান কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছে নাপোলি। সব মিলিয়ে ইতালিয়ান কাপের ছয় নম্বর শিরোপা ঘরে তুলল তারা।

রোনালদোর অবশ্য একটা আফসোস সঙ্গী হওয়ার কথা। টাইব্রেকারে তো বরাবরই দুর্দান্ত তিনি, অথচ কিক নেওয়ারই সুযোগ পেলেন না। রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ইতালিতে আসার পর জুভেন্টাসের জার্সিতে দ্বিতীয়বারের চেষ্টাতেও লীগ বাদে অন্য কোনো শিরোপা ছুঁয়ে দেখা হয়নি তার। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো টানা দুই ফাইনাল হারলেন রোনালদো। গত ডিসেম্বরে সুপার কোপা দে ইতালিয়ার ফাইনালে লাজিওর কাছে হেরেছিল জুভেন্টাস। নাপোলির বিপক্ষে পুরো ম্যাচে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন রোনালদো। ক্যারিয়ারের ৩০তম শিরোপার কাছে গিয়েও খালি হাতে ফিরতে হল পাঁচবারের বর্ষসেরা তারকাকে।

জুভেন্টাস কোচ মাউরিসিও সারির জন্য বুধবারের রাতটি ছিল ভীষণ হতাশার। গত বছরের জুনে দায়িত্ব নেয়ার পর হারলেন টানা দুই ফাইনাল। যার শেষটা আবার সাবেক ক্লাবের বিপক্ষেই। বিপরীতে স্বপ্নময় রাত কাটিয়েছেন নাপোলি কোচ জেনারো গাত্তুসো। ইতালিয়ান কিংবদন্তি মিডফিল্ডারের ক্যারিয়ার সাফল্যে ভরা। ২০০৬ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য তিনি। এসি মিলানের স্বর্ণালি সময়ে জিতেছেন ক্লাব ফুটবলের সম্ভাব্য সব শিরোপা। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৯’র মে পর্যন্ত এসি মিলানের কোচের দায়িত্বে থাকলেও সাফল্য পাননি। সে বছরের ডিসেম্বরে নাপোলির দায়িত্ব নিয়েই জিতলেন শিরোপা। নাপোলির দায়িত্বে ১৪৭ ম্যাচেও কোনো শিরোপা জেতা হয়নি সারির, আর গাত্তুসো মৌসুমের মাঝপথে দলের দায়িত্ব নিয়ে ১৭ তম ম্যাচে এসে পেলেন শিরোপা। সেটা তার কোচিং ক্যারিয়ারেরও প্রথম। ২০০৩ সালে খেলোয়াড় হিসেবে কোপার শিরোপা জিতেছিলেন গাত্তুসো, ১৭ বছর পর জিতলেন কোচ হিসেবে।

স্পেন, ইংল্যান্ড ও জার্মানিতে লীগ দিয়ে ফুটবল ফিরলেও ইতালিতে করোনা পরবর্তী ফুটবল মাঠে গড়িয়েছে কাপ দিয়ে। ২০শে জুন আবারো শুরু হবে ইতালিয়ান সিরি আ। জুভেন্টাস মাঠে নামবে ২৩শে জুন, বোলোনিয়ার বিপক্ষে। লীগের ১২ ম্যাচ বাকি থাকতে দুইয়ে থাকা লাজিওর চেয়ে এক পয়েন্টে এগিয়ে আছে জুভেন্টাস।-ডেস্ক