(দিনাজপুর২৪.কম) তৃতীয় ওয়ানডেতে ওপেনিংয়ে ১৫৪ রানের জুটি গড়েন সৌম্য-তামিম। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ওপেনিং জুটিতে এটি রেকর্ড। আর সিরিজ শেষে ব্যাট হাতে বাংলাদেশ দলের সেরা পরিসংখ্যানও সৌম্য-তামিমেরই। ২০৫ রান নিয়ে ব্যাটিং তালিকার শীর্ষে সৌম্য সরকার। আর বল হাতে ৮ উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন প্রোটিয়াদের প্রথম ওয়ানডে জয়ের নায়ক কাগিসো রাবাদা। তবে সিরিজের বোলিং পরিসংখ্যানে উজ্জ্বল টাইগাররাই। এতে সাফল্যে  স্পিনারদের চেয়ে এগিয়ে টাইগার পেসাররা। তিন ম্যাচে একটি ফিফটিসহ ১১০ রান করে দ্বিতীয় স্থানে আছেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান ফাফ  ডু প্লেসি। এই কন্ডিশনে স্পিন মোকাবিলায় সেরা এই ব্যাটসম্যান টি-টোয়েন্টিতে দলের নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশও করেছিল। সমান ৬৬ রান নিয়ে তালিকায় তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে আছেন রাইলি রুসো ও তামিম ইকবাল। ৬৪ রান করে পঞ্চমস্থানে আছেন জেপি ডুমিনি। সৌম্য সরকার প্রথম ম্যাচে আউট হয়েছিলেন ২৪ রান করে। এরপরই তিনি পরপর দুই ম্যাচে ফিফটি হাঁকান। মাত্র ১৬ ওয়ানডে খেলেই আইসিসি সেরা ব্যাটসম্যানের র‌্যাঙ্কিংয়ে এখন তার অবস্থান শীর্ষ ১৫তে। অন্যদিকে বল হাতে রাবাদার পরই ৫ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন মুস্তাফিজুর রহমান। ৪টি উইকেট নিয়ে তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে আছেন রুবেল হোসেন ও নাসির হোসেন। তাদের পরই তিনটি করে উইকেট নিয়ে ৫ ও ৬ষ্ঠ স্থানে আছেন মাশরাফি বিন মতুর্জা ও সাকিব আল হাসান। এই সিরিজেই বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বোলার হিসেবে ২০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন সাকিব আল হাসান ও মাশরাফি বিন মুর্তজা। এর আগে বাংলাদেশের এক মাত্র ২শ’ উইকেটের মালিক ছিলেন আবদুর রাজ্জাক।
দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার কাগিসো রাবাদার বিশ্ব রেকর্ড। অভিষেকেই ওয়ানডেতে হ্যাটট্রিকসহ ৬ উইকেট। এমন দুর্দান্ত বোলিংয়ে প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দল গুটিয়েছিল ১৬০ রানে। জবাব দিতে নেমে ৮ উইকেটে বিশাল জয় তুলে নেয় প্রোটিয়ারা। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে বাঘের মরণ কামড়। তিন পেসার আর ৩ স্পিনার মিলে প্রোটিয়াদের রানের চাকা গুঁড়িয়ে দেন। ১৬২ রানে অল আউট হাশিম আমলার দল। আর বোলারদের এনে দেয়া স্বল্প পুঁজি তাড়া করতে খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি টাইগার ব্যাটসম্যানদের। ৭ উইকেটের জয় নিয়ে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। ৮৮ রানে অপরাজিত ছিলেন সৌম্য সরকার। তৃতীয় ম্যাচেও টাইগারদের পেস-স্পিনে নাজেহাল দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস থামে ১৬৮ রানে। জবাব দিতে নেমে সেঞ্চুরি থেকে ১০ রান দূরে আউট হন সৌম্য সরকার। তবে অপর ওপেনার তামিম ইকবাল ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন।-(ডেস্ক)