(দিনাজপুর২৪.কম) প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংকে ১ লাখ টাকা রাখলে বছর শেষে ৮০০ টাকা কেটে রাখার যে প্রস্তার রাখা হয়েছে, সংসদে তার বিরোধীতা করেছেন সরকারি দলের এমপি হুইপ শহিদুজ্জামান সরকার। তিনি বলেন, আবগারি শুল্ক নিয়ে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। মানুষ কষ্ট করে ব্যাংকে টাকা জমা রাখার পর সেই টাকা কেটে নিয়ে যাবে সরকার- এনিয়ে মানুষ আতঙ্কিত। এজন্য আবগারি শুল্ক আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে অনুরোধ জানান তিনি। একই সঙ্গে সোলার প্যানেলের উপর শুল্ক প্রত্যাহারের দাবিও জানান।

সংসদের বাজেট অধিবেশনে সোমাবার চলতি অর্থবছরের (২০১৬-২০১৭) সর্ম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান। এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীরর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, জাতীয় পার্টির সদস্য সেলিম উদ্দিন আলোচনায় অংশ নেন।

হুইপ বলেন, আবগারি শুল্ক প্রত্যাহার কথা বলছি না। আবগারি শুল্ক যেন আগের অবস্থায় থাকে। বিশেষ করে গ্রামের মানুষ অনেক কষ্ট করে টাকা জমা রাখে। আগে এ শুল্ক ২০ হাজার টাকায় ৫০০ টাকা ছিল। তাই আবগারি শুল্ক যেন আগের মতই থাকে এ আহ্বান জানাচ্ছি।

জাতীয় পার্টির সদস্য সেলিম উদ্দিন ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের সম্পূরক বাজেটের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বরাদ্দকৃত অর্থের চেয়ে বেশি খরচ করেছে ২৭টি মন্ত্রণালয়। প্রথম ১০ মাসে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কাজের অগ্রগতি দেখানো হয়েছে ৫১ শতাংশ আর শেষ দুই মাসে ৪১ শতাংশ কাজ দেখানো হয়েছে। এটা কিভাবে সম্ভব?

তিনি আরও বলেন, ৩৫টি মন্ত্রণালয় বরাদ্দকৃত টাকা খরচ করতে পারলো না। সেটা তারা কেন পারল না, তার ব্যখ্যা নেই। আসলে তারা কি কাজ করেছে, কি করেনি তাও এখানে উল্লেখ করা দরকার ছিল। -ডেস্ক