(দিনাজপুর২৪.কম) সেতুতে উঠলে কিংবা সেতু ব্যবহার করে সড়কে নামলেই টোল দিতে হয় ব্যবহারকারীকে, বিষয়টি নিতান্তই স্বাভাবিক। কিন্তু চাঁদপুর সড়ক বিভাগের অধীন মতলব সেতুতে ঘটছে উল্টো ঘটনা। ভিআইপি, ভিভিআইপি পরিচয়দানকারীসহ রাজনৈতিক ও স্থানীয়দের মধ্যেও অসংখ্য ব্যক্তি সেতু ব্যবহার করলেও প্রভাব খাটিয়ে টোল দেন না।

স্বাভাবিক-অস্বাভাবিক এ নিয়মের উর্ধ্বে ডা. দীপু মনি। যিনি বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী। তার জন্মস্থান এবং নির্বাচনী এলাকায় চাঁদপুর জেলায়। যে কারণে নিজ এলাকায় রাজনৈতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যাওয়া আসা করতে গিয়ে বেশিরভাগ সময়ই এ সেতু ব্যবহার করেন।

 শনিবারও (১২ অক্টোবর) গাড়ি বহর নিয়ে চাঁদপুর সফরে যান তিনি। চাঁদপুর মতলব সেতু অতিক্রম করার সময় নির্ধারিত হারে বহরে থাকা সবকটি গাড়ির টোল প্রদান করেন।

বিষয়টি স্বাভাবিক হলেও টোল আদায়কারীরা বলছেন, অনেকেই সেতু ব্যবহার করলেও টোল দিতে চান না। বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে চলে যান। কিন্তু তিনিই (শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি) একমাত্র ব্যক্তি যিনি নির্ধারিত হারে টোল প্রদান না করে সেতু অতিক্রম করেন না। এ নিয়ে টোল আদায়কারীরা শিক্ষামন্ত্রীর প্রশংসাও করেন।

টোল দেওয়া না দেওয়ার বিষয়টি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে জানালে তিনি বলেন, আমি নীতি আদর্শের মধ্যে থেকেই নিয়ম অনুযায়ী চলার চেষ্টা করি। আমি কখনোই সেতুর টোল না দিয়ে যাই না। নিয়ম অনুযায়ী নির্ধারিত হারের টোল পরিশোধ করেই তারপর সেতু অতিক্রম করি।

এর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ডা. দীপু মনির হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একটি ছবি ভাইরাল হয়। যা ব্যাপকহারে প্রসংসিতও হয়েছিল।

ওই ছবিতে দেখা যায়, তিনি বহির্গমনের জন্য ব্যাগ কাঁধে নিয়ে সাধারণ যাত্রীদের সারিতে গিয়ে দাঁড়িয়েছেন। যেখানে অন্যান্য ভিআইপি পরচিয়দানকারী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে কল্পনাও করা যায় না। -ডেস্ক