(দিনাজপুর২৪.কম) নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে ইংল্যান্ড। দলকে সেমির টিকিট পাইয়ে দেওয়া ৮৭ রানের বিশাল জয়ের পর ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়ন মরগান প্রশংসায় ভাসিয়েছেন বোলারদের। কিউইদের বিপক্ষে জয়ের পুরো কৃতিত্বই তিনি দিয়েছেন বোলারদের। টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩১০ রানের পুঁজি গড়েছিল ইংল্যান্ড। তারপরও ম্যাচ শেষে মরগান বলেছেন, ব্যাটিং ছিল তাদের মানের চেয়ে নিচে! তার কথা, কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনের নিখাঁদ ব্যাটিং উইকেটে তাদের আরও বেশি রান করা উচিত ছিল। তবে ব্যাটসম্যানদের সেই ঘাটতির ষোলআনাই পুষিয়ে দিয়েছেন বোলাররা। ব্যাটিং-বান্ধব উইকেটে নিউজিল্যান্ডকে মাত্র ২২৩ রানেই গুঁড়িয়ে দিয়ে এনে দিয়েছেন বিশাল জয়।

ম্যাচ শেষে অধিনায়ক মরগান বোলারদের প্রশংসায় ছিলেন পঞ্চমুখ, ‘আমি মনে করি তারা (বোলাররা) অসাধারণ পারফর্ম করেছে। দিনের হাইলাইটস ছিল আমাদের বোলাররাই। গড়ে আমাদের আমাদের ব্যাটিং ছিল মানের চেয়ে নিচে। কাজেই আমি মনে করি, বোলাররা এক ইউনিট হয়ে সত্যিই দারুণ করেছে।’ জো রুট, অ্যালেক্স হেলসের হাফসেঞ্চুরিতে এক পর্যায়ে ৩ উইকেটে ৩৩.২ ওভারেই ১৮৮ রান করে ফেলেছিল ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের রান তখন ৩৫০ হবে বলেই মনে হচ্ছিল। কিন্তু শেষ দিকে টপাটপ উইকেট পড়ায় ইংল্যান্ড করতে পারে ৩১০ রান।

মরগানের কণ্ঠে তাই ছিল রান কম করার আফসোস, ‘এক পর্যায়ে আমাদের স্কোর ৩৪০-এর মতো হবে বলেই মনে হচ্ছিল। কিন্তু আমরা তা করতে ব্যর্থ। যা সত্যিই ছিল হতাশার।’ তবে ম্যাচ শেষে সেই হতাশাটা মুছে দিয়েছেন বোলাররা। লিয়াম প্লানকেট, জ্যাক বল, মার্ক উড, আদিল রশিদ, বেন স্টোকস-প্রত্যেকেই দারুণ বোলিং করেছেন। ৫৫ রানে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন প্লানকেট। তবে তিনি নন, ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন ৮ ওভারে মাত্র ৩১ রানে ২ উইকেট নেওয়া জ্যাক বল।

ম্যাচ শেষে নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও মরগানের সঙ্গে সুর মিলিয়ে সমস্ত কৃতিত্ব দিয়েছেন ইংলিশ বোলারদের, ‘ইংল্যান্ড বোলারদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। তারা ধারাবাহিকভাবে দারুণ বোলিং করেছে। ব্যাট হাতে আমাদের জন্য কাজটা কঠিন করে তুলেছিল। -ডেস্ক