-সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে। চলতি বছর উৎপাদনে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙেছে বাংলাদেশ। ১০ বছর আগে ২০০৮-৯ অর্থবছরে বাংলাদেশে ইলিশ উত্পাদিত হয়েছিল ২ লাখ ৯৮ হাজার মেট্রিক টন। বর্তমান বছরে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৭ লাখ মেট্রিক টন। চলতি বছর জানুয়ারিতে শুধু বরিশাল বিভাগের ছয় জেলার নদনদীতে ২০ হাজার মেট্রিক টন ইলিশ পাওয়া গেছে। প্রজনন মৌসুমে ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা এবং জাটকা নিধন বন্ধে নেয়া পদক্ষেপ কার্যকর হওয়ায় ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী শীত মৌসুমসহ সব সময়ে এভাবে ইলিশ পাওয়া যাবে বলে জাটকা সংরক্ষণে টাস্কফোর্স ও মত্স্যবিভাগ সূত্রে জানা গেছে। পৃথিবীতে ইলিশ আহরণকারী ১১টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এখন শীর্ষে। বাংলাদেশ মোট ইলিশ উৎপাদনের ৮০ শতাংশ আহরণ করে। ইলিশের বিচরণ এখন শুধু চাঁদপুর, বরিশাল ও ভোলায় সীমাবদ্ধ নয়। রাজশাহী, রংপুর ও বৃহত্তর সিলেটে বিভিন্ন নদ–নদী ও হাওরে এখন ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে। অতীতে ‘ইলিশের বাড়ি’ ছিল পদ্মা-মেঘনা-ডাকাতিয়ার মোহনা চাঁদপুরে। এখন ভোলা-বরগুনার নদী-সাগর মোহনা থেকে শুরু করে বৃহত্তর সিলেটের বিস্তীর্ণ হাওরে পর্যন্ত মিলছে ‘জলের উজ্জ্বল শস্য’ ইলিশ। প্রতিবছর বরগুনায় হচ্ছে ইলিশ উৎসব।
শুধু মৌসুম জুড়েই নয়, রূপালি ইলিশের প্রাচুর্য সারা বছরই রসনাবিলাসীদের পাতে থাকবে আগামীতে। সেই লক্ষ্যের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছে বাংলাদেশ। -ডেস্ক