(দিনাজপুর২৪.কম) যশোরের বেনাপোল সীমান্তে ভারতীয় পটকা বাজি আটককে কেন্দ্র করে বিজিবি ও চোরাচালনীদের মধ্যে সংঘর্ষে এক বিজিবি সদস্য সহ ৪জন আহত হয়েছে। আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বেনাপোলের একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে দিয়েছেন।পোর্ট থানা পুলিশের সেকেন্ড অফিসার হাবিবুর রহমান হাবিব ও  বিজিবি সুবেদার গিয়াস উদ্দিন জানান, বুধবার দুপুরে বেনাপোল রেলষ্টেশন থেকে খুলনা গামী একটি রেলে চোরাকারবারীরা ভারতীয় পটকা বাজির চালান তোলার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ সদস্যরা ৪কাঠুন ও বিজিবি ২ কাটুন মাল আটক করেন।

বিজিরি অভিযোগ- পট্কা বাজি আটকের ঘটনায় একদল চোরাকারবারী বিজিবির উপর চামলা করে ২কাটুন পটকা ছিনিয়ে নেয় । এসময় বিজিবি সদস্যরা চোরাকারবারীদের ধরতে গেলে চোরাকারবারীরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে ইট ও পাথর ছুড়তে থাকে।  ছোঁড়া ইটের আঘাতে বিজিবি নায়েক নাইমুর সহ  আব্দুর রউফ, তুষার, বাবু বেশ কয়েকজন আহত হন।

আহতদেরকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। পরে পুলিশ ও অতিরিক্ত বিজিবি এসে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে বিজিবির খোয়া যাওয়া মালামাল আটক করতে পারেনি।
স্থানীয়দের অভিযোগ বিজিবি চোরাকারবারীদের আটক করতে না পেয়ে স্থানীয় নারী পুরুষ ও শিশুদের উপর নির্বিচারে হামলা চালিয়েছে। কিন্তু এই হামলার ঘটনাটি অস্বীকার করেন নায়েক সুবেদার গিয়াস উদ্দিন।  বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকটা শান্ত হলেও থমথমেভাব বিরাজ করছে।

স্থানীয়দের মধ্যে জনৈক  ইসাহক মিয়া নামে একজন  দাবি করেন,   চোরাকারবারীদের সাথে এটে উঠতে না পেরে স্থানীয় নারীশিশুদের উপরে হামরে পড়ে। অনেকটাই পুরানো প্রবাদের মত, মাছ না পেয়ে সিপে কামড় দেওয়া। (ডেস্ক)