(দিনাজপুর২৪.কম) আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) দুপরের মধ্যে ৯ দফা বাস্তবায়ন না হলে রাজধানী ঢাকা অচলের হুমকি দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। বুধবার (০১ আগস্ট) শাহবাগে অবরোধ ও বিক্ষোভ শেষে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। আন্দোলনকারীদের পক্ষে হাসিব হাসান নামে এ শিক্ষার্থী বলেন, ‘আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) ক্লাস বর্জন কর্মসূচি পালন করা হবে। এছাড়া শাহবাগেও অবস্থান নেবে শিক্ষার্থীরা। যদি দুপুর ১২টার মধ্যে আমাদের দাবি না মানা হয় তবে পুরো ঢাকা অচল করে দেওয়া হবে।’

আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ‘বাংলাদেশের সড়ক নিরাপদ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ফেসবুকে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ নামে একটি গ্রুপ খোলা হবে। সেখানেই সব ঘোষণা দেওয়া হবে। পরে প্রায় চার ঘণ্টা অবরোধ শেষে বিকালে শাহবাগ মোড় থেকে সরে যান শিক্ষার্থীরা। এসময় ফের গাড়ি চলাচল শুরু হয়।

শিক্ষার্থীদের নয় দফা দাবি হল: 
১. বেপোরোয়া চালককে ফাঁসি দিতে হবে এবং এই শাস্তি সংবিধানে সংযোজন করতে হবে।
২. নৌপরিবহনমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।
৩. শিক্ষার্থীদের চলাচলে এমইএস ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপদ ব্যবস্থা নিতে হবে।
৪. প্রত্যেক সড়কের দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় স্পিড ব্রেকার দিতে হবে।
৫. সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র-ছাত্রীদের দায়ভার সরকারকে নিতে হবে।
৬. শিক্ষার্থীরা বাস থামানোর সিগন্যাল দিলে থামিয়ে তাদের বাসে তুলতে হবে।
৭. শুধু ঢাকা নয়, সারাদেশে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে।
৮. রাস্তায় ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল এবং লাইসেন্স ছাড়া চালকদের গাড়ি চালনা বন্ধ করতে হবে।
৯. বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেওয়া যাবে না।

প্রসঙ্গত, গত রোববার (২৯ জুলাই) দুপুরে বিমানবন্দর সড়কে হোটেল রেডিসন এলাকায় জাবালে নূর বাসের চাপায় রমিজ উদ্দিন কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। সড়কে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন অনেক শিক্ষার্থী। এসময় মোহাম্মদপুর-আব্দুল্লাহপুর রুটে চলাচলকারী জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাস তাদের ওপর উঠিয়ে দেয়া হয়। এতে ঘটনাস্থলেই এক ছাত্র ও এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়। -ডেস্ক