(দিনাজপুর২৪.কম) আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর রাজধানীতে অবস্থিত ফরাসি দূতাবাস ও সেনাবাহিনীর প্রধান দফতরে শুক্রবার জোড়া সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে।এতে নিরাপত্তা বাহিনীর ৮ সদস্য ও ৮ হামলাকারীসহ ১৬ জন নিহত হয়েছেন। বেসামরিক লোকসহ আহত হয়েছেন আরও ৮০ জন। খবর এএফপির।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফরাসি দূতাবাসের সামনে ৫ জন অস্ত্রধারী একটি গাড়ি থেকে নামে। দূতাবাসের সামনে থাকা সাধারণ পথচারীদের লক্ষ করে তারা গুলি চালায়। এ সময় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পাল্টা আক্রমণে হামলাকারীরা নিহত হয়।

বুরকিনা ফাসোর নিরাপত্তা বিষয়কমন্ত্রী ক্লেমেন্ট সাওয়াদোগো বলেন, সামরিক বাহিনীর প্রধান কার্যালয়ে একটি আত্মঘাতি বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীদের বহনকারী যানটি বিস্ফোরকে ভর্তি ছিল। হামলায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। হামলা চলার সময় পাঁচ জাতির একটি শান্তি আলোচনা হচ্ছিল। সেনা সদর দফতরে এ আলোচনা চলছিল। হামলাকারীদের উদ্দেশ্য ছিল এ আলোচনা পণ্ড করা।

তিনি উল্লেখ করে বলেন, এই জোড়া হামলা বলে দিচ্ছে, পশ্চিম আফ্রিকার ভঙ্গুর দেশটিকে কতটা ব্যাপক প্রাণঘাতি হামলা ও জেহাদি গোষ্ঠীগুলোর বিদ্রোহের মোকাবেলা করতে হচ্ছে।

অন্যদিকে ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন ওয়াইভেস লে দ্রিয়ান বলেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে এটি সন্ত্রাসী হামলা। তবে কারা এবং কেন এই হামলা চালিয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে এএফপি জানায়, পাঁচ বন্দুকধারী গাড়ি থেকে বের হয়ে পথচারীদের ওপর নির্বিচারে গুলি ছোড়ে। এরপর তারা ফরাসি দূতাবাসের দিকে হেঁটে যায়। একই সময় বুরকিনা ফাসোর নিরাপত্তা বাহিনীর কার্যালয়ে বোমা বিস্ফোরিত হয়। ঘটনাস্থলের ছবিতে আকাশে কালো ধোঁয়া উড়তে দেখো গেছে।

উল্লেখ্য,বুরকিনা ফাসো, চাদ, মালি, মৌরতানিয়া ও নাইজারের প্রতিনিধিরা জি-৫ সাহেলের জাতিগুলোর বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। এসব দেশ সাহারার দক্ষিণাঞ্চলে জেহাদি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান পরিচালনা করেছে। -ডেস্ক