বীরগঞ্জ প্রতিনিধি (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের বীরগঞ্জ-কাহারোল উপজেলা নিয়ে গঠিত দিনাজপুরের ১ আসনের দলীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জনশীল গোপালের বিরুদ্ধে অনাস্থার প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন আওয়ামী লীগের বীরগঞ্জ উপজেলা কমিটিসহ অঙ্গ সংগঠনের তৃণমুলের নেতারা। গত রবিবার দলীয় কার্যালয়ে দিনব্যাপী যৌথসভায় ওই সিদ্ধান্ত নেন তারা। দলীয় এমপির বিরুদ্ধে অসৎ আচরণের অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। আসন্ন নির্বাচনে তাকে দলীয় মনোনয়ন না দিতে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে নালিশ জানাতে একমত পোষণ করেছেন তারা।

যৌথসভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের বীরগঞ্জ উপজেলা কমিটির সভাপতি জাকারিয়া জাকা। এমপি’র বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অনিয়মের ফিরিস্তি তুলে ধরেন বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক এমপি আমিনুল ইসলাম, সাবেক এমপি অধ্যাপক আব্দুল হক সবুজ, জেলা কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট হামিদুল ইসলাম, যুবলীগের সভাপতি নুরিয়াস সাঈদ, সাধারণ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন, কৃষক লীগের সভাপতি শিবলী সাদিক এবং সাধারণ সম্পাদক শক্তি রায়সহ অন্যান্যরা।

বক্তাদের অভিযোগ জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি জাগপা থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দিলেও এমপি নির্বাচিত হয়ে তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে অসভ্য আচরণ, মিথ্যা মামলায় হয়রানি করাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জামায়াত-বিএনপিপন্থীদের নিয়োগ দিয়ে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন মনোরঞ্জনশীল গোপাল।

এছাড়াও কাহারোল উপজেলার বটতলী নামক স্থানে দ্বীপ্ত জীবন ফাউন্ডেশনের নামে জেলা পরিষদ থেকে এক কোটি টাকা নিয়ে কাজ না করে আত্মসাৎ সহ বিভিন্ন নামে শত শত একর জমি ক্রয় করার অভিযোগ আনা হয়েছে দলীয় এমপির বিরুদ্ধে। আগামী ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোরঞ্জন শীল গোপালকে মনোনয়ন না দেওয়ার জন্য দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ বার্তা প্রেরণের আহবান জানিয়েছেন বক্তারা। তার বিরুদ্ধে অনাস্থার প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন তারা।