শাহেদুর রহমান (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলায় পঞ্চম ধাপে ২৮ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ১৩ মে প্রতিক পাওয়ার পর প্রতিটি প্রার্থী নিজ নিজ এলাকায় প্রাচার প্রচোনায় ব্যস্ততম সময় কটাচ্ছেন। কোন কোন প্রার্থী খাওয়ার সময় পর্যন্ত পাচ্ছেন না। গত ২২ মে নির্বাচনী এলাকা পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়। ৪নং পাল্টাপুর ইউনিয়ন পাল্টাপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রতিক নৌকা পেয়েছেন ইউনিয়ন আ:লীগ এর সভাপতি ও ছয় বারের বিজয়ী সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আবদুর রহমান। তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় পথ সভা, উঠান বৈঠক, বাড়ি বাড়ি, হাটে ও বাজারে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন ও ভোটারদের কাছ থেকে দোয়া ও নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে তৃণমূল পর্যায় হতে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। এবং এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ মাদক মুক্ত সমাজ গড়ার আশ্বাস প্রদান করেন। প্রার্থীকে নির্বাচনী প্রচারনায় সমস্যার কথা বলা হলে তিনি বলেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা একটু সমস্যা করছে তবে দুই একটি এলাকা বাদদিয়ে তেমন কোন সমস্যা নেই, আশা করি সুন্দর ও সুষ্ঠ নির্বাচন হবে কোথাও কোন বিশৃঙ্খল ঘটনা ঘটবে না সে বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সজাগ থাকবেন এবং আ:লীগ বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন।
১১নং মরিচা ইউনিয়ন
মরিচা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রতিক নৌকা পেয়েছেন ইউনিয়ন আ:লীগ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আতাহারুল ইসলাম চৌধরী (হেলাল)। তিনিও তার নির্বাচনী এলাকায় পথ সভা, উঠান বৈঠক, বাড়ি বাড়ি, হাটে ও বাজারে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন ও ভোটারদের কাছ থেকে দোয়া ও নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে তৃণমূল পর্যায় হতে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। এবং এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ মাদক মুক্ত সমাজ গড়ার আশ্বাস প্রদান করছেন।
৬নং নিজপাড়া ইউনিয়ন
নিজপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রতিক নৌকা পেয়েছেন উপজেলা যুব আ:লীগ এর সাধারন সম্পাদক নুরিয়াস সাঈদ মোঃ ফয়সাল। তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় পথ সভা, উঠান বৈঠক, বাড়ি বাড়ি, হাটে ও বাজারে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন ও ভোটারদের কাছ থেকে দোয়া ও নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে তৃণমূল পর্যায় হতে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। এবং এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ মাদক মুক্ত সমাজ গড়ার আশ্বাস প্রদান করেন। তাকে সমস্যার কথা বলা হলে তিনি বলেন বিরোধী দল বিএনপি সমর্থীত প্রার্থী সমস্যা করছে না তবে বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচনী অফিস গত বৃহস্পতিবার আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রির ছবি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ছবি পুড়িয়ে ও ছিড়ে দিয়েছেন এবং এ বিষয়ে আট জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবং ইউনিয়নের বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোঃ আনিসুর রহমানের সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি সুন্দর ভাবে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছেন বলেন কিন্তু তিনিও বিদ্রোহী প্রার্থীর কথা উল্লেখ করে বলেন বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় ঢুকে ভোট চাওয়ার কথা বলে শাড়ী বিতরণ ও ভোটার গণকে টাকা দিয়ে ভোট কিনে নেওয়ার প্রলোভন দেখাচ্ছেন। দুই একটি ভোট কেন্দ্র বাদ দিয়ে তেমন কোন সমস্যা বলে মনে করেন না। বিদ্রোহী প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি বলেন আমি বর্তমান চেয়ারম্যান কিন্তু চক্রান্তবশত আমি দলীয় প্রতিক পাই নাই কিন্তু জনগণ আমাকে চাচ্ছে তাই আমি সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছি। কিন্তু আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও বিএনপি প্রার্থী আমার নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদান করছে ও আমাকে মিথ্যা মামলায় জড়াচ্ছে যেন আমি ভোট করতে না পারি। তাতে আমি বসে নেই আমি আমার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি আর আশা করি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে আবার চেয়ারম্যান হব।