প্রতীকী ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) চীনের উহানে গত বছর ডিসেম্বরে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর প্রায় ১০ মাসে বিশ্বব্যাপী ১০ লাখ মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা ভাইরাস। গতকাল রাতে এ প্রতিবেদন লেখার সময় করোনা মহামারী তথ্য হালনাগাদ রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডো মিটারে বিশ্বের মৃতের

সংখ্যা দেখাচ্ছিল ৯ লাখ ৯৯ হাজার ৬৪২ জন। বিশ্বে কয়েকটি দেশে সংক্রমণ ও মৃত্যুর যে ঊর্ধ্বগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে তাতে অল্প সময়ের মধ্যেই ১০ লাখের দুর্ভাগ্যজনক মাইলফলকটি অতিক্রম করবে।

এদিকে গতকাল পর্যন্ত বিশ্বে সর্বমোট করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৩১ লাখ ২১ হাজারে বেশি। তবে ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৪৪ লাখ ৬১ হাজার ৩৪৫ জন। বিশ্বে বেশ কিছু দেশে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার কমে এলেও যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও ব্রাজিলে প্রাদুর্ভাব চলতে থাকায় সূচক ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৪৩ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে দেশটিতে মৃত্যুবরণ করেছে ৭৩৭ জন। এদিকে ভারতে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৮৯ হাজারের বেশি মানুষ আর মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ১২৪ জন। ব্রাজিলে ২৫ হাজারের বেশি মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আর মৃত্যুবরণ করেছে ৭৩২ জন।

চীনের করোনার মহামারী শুরু হলেও বিশ্বে প্রথম থাবা বসায় ইউরোপের কয়েকটি দেশে। ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, যুক্তরাজ্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। কঠোর লকডাউনের মধ্য দিয়ে দেশগুলো মহামারী থেকে বেরিয়ে আসার পর সম্প্রতি আবারও দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ শুরু হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে সামনে শীতে আবারও করোনার প্রকোপ বেড়ে যাবে। সেই শঙ্কা বিবেচনায় নিয়ে যুক্তরাজ্য ইতোমধ্যে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে যা চলছে আগামী ছয় মাস। ইউরোপের পরপরই করোনা ভাইরাস তা-ব চালায় আমেরিকা ও দক্ষিণ আমেরিকার কয়েকটি দেশে- যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করেছে, করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০ লাখে পৌঁছাতে পারে। -ডেস্ক