(দিনাজপুর২৪.কম) বিশ্বশান্তি, পরকালীন মুক্তি এবং ইহকালীন কল্যাণ কামণায় শেষ হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাত। পাপ থেকে মুক্তি, ভালো কাজের অনুপ্রেরণা পেতে দোয়ায় অংশ নিয়েছেন দেশ-বিদেশি লাখো মুসল্লি।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) বেলা ১১টা ৫০ মিনিটের দিকে আখেরি মোনাজাত শুরু হয় ১২ টা ০৭ মিনিটে মোনাজাত শেষ হয়। শেষ পর্বের আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন নিজামুদ্দিন মাওলানা জামশেদ।

এর আগে মুসল্লিদের সামনে উর্দূতে বয়ান করেন ভারতের নিজামুদ্দিনের মুরুব্বি ইকবাল হাফিজ। পরে তা বাংলায় তরজমা করেন মাওলান ওয়াসিফুল ইসলাম। পরে হেদায়েতি বয়ান করেন নিজামুদ্দিনের মাওলানা জামশেদ। তা বাংলায় তরজমা করেন মাওলানা আশরাফ আলী।

​রবিবার সকাল থেকেই হেদায়েতি বয়ানের পর লাখো মুসল্লির জনসমুদ্রে নেমে আসে নীরবতা। দেশ-বিদেশি লাখো মুসল্লির মোনাজাতে শরিক হয়ে নিজের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করেন মুসল্লিরা। আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে সাকাল ১০টার আগেইকানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় মাঠের আশে-পাশের অলি-গলি, রাস্তা, পাশ্ববর্তী বাসা-বাড়ি-কলকারখানা-অফিস-দোকানের ছাদে, যানবাহনের ছাদে ও তুরাগ নদীতে নৌকায় মুসল্লিরা অবস্থান নেন। ইজতেমাস্থলে পৌঁছাতে না পেরে কয়েক লাখ মুসল্লি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নেন।

শেষ পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় বিদেশি মেহমান:

ভারত, পাকিস্তান, ইরান, ইরাক, সৌদিআরব, এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়াসহ ৫৫টি দেশের হাজরো বিদেশি মুসল্লি বিশ্ব ইজতেমায় দ্বিতীয় পর্বে অংশগ্রহণ করেন। এদের মধ্যে ভারত, পাকিস্তান অংশগ্রহণ ছিল অধিক পরিমানের। -ডেস্ক