(দিনাজপুর২৪.কম) ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডকে (বিসিসিআই) শেষবারের মতো সতর্ক করেছে আইসিসি। আর এই সতর্কবার্তা হলো, আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে আইসিসির কোষাগারে ২৩ মিলিয়ন ডলার বা ১৬২ কোটি রুপি যদি বিসিসিআই জমা করতে ব্যর্থ হয় তাহলে ২০২১ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ও ২০২৩ বিশ্বকাপ আয়োজন করতে পারবে না ভারত। ২০১৬ সালে ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টির আসর বসেছিল। সেই আসরের ট্যাক্স ডিডাকশনের ক্ষতিপূরণ হিসেবেই এমন দাবি করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা। আইসিসির দাবি, ক্রিকেট গভর্নিং বডি দেশটির কেন্দ্রীয় অথবা রাজ্য প্রশাসনের কাছ থেকে ট্যাক্স কমানোর জন্য কোনো অনুমতি দেয়নি। গত অক্টোবরে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত আইসিসি’র বোর্ড মিটিংয়ে অর্থ পরিশোধের বিষয়ে মনে করিয়ে দেওয়া হয় বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম। বিসিসিআই বর্তমানে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃক নিয়োগকৃত কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। অর্থ পরিশোধের জন্য এখন এই কমিটির হাতে সময় আছে সাকুল্যে ৯ দিন। যদি বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) সময় মতো অর্থ পরিশোধে ব্যর্থ হয়, তাহলে আইসিসিতে ভারতের নামে যে রাজস্ব জমা হবে তা থেকে ওই পরিমাণ অর্থ কেটে রাখার হুমকিও দেওয়া হয়েছে আইসিসি’র মিটিংয়ে। আর সেই সঙ্গে ২০২১ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ও ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজক হওয়ার সুযোগও হারাবে ভারত। এদিকে বিসিসিআই’র তরফ থেকে আইসিসি’র দাবিকে অস্বীকার করা হয়েছে। বরং আইসিসি’র কাছে ওই আলোচনার মিনিটস -এর কপি দাবি করেছে তারা। এমনকি প্রয়োজনে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও হুমকি দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। -ডেস্ক