(দিনাজপুর২৪.কম) ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে বাউন্ডারির সংখ্যা দিয়েই নির্ধারিত হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন দেশ। তাই নিয়ে বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে ওঠে সমালোচনার ঝড়। অনেকে একে হাস্যকর নিয়ম বলে অ্যাখ্যায়িত করেন। সেই ধাক্কায় নিয়মই পাল্টে ফেলল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এখন টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল ও ফাইনালে সুপার ওভার টাই হলেও বাউন্ডারি সংখ্যায় ফল নির্ধারিত হবে না। কোনো এক দল জয় না পাওয়া পর্যন্ত একটির পর একটি সুপার ওভার চলতেই থাকবে।

১৫ জুলাই বিশ্বকাপের সেই আলোচিত ফাইনালে মূল স্কোর সমান হয়ে যাওয়ার পর খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও ম্যাচ হয় টাই। এরপরই অদ্ভূত বাউন্ডারি গণনার নিয়মটা প্রয়োগ করা হয়। যেখানে বাউন্ডারি বেশি মারার কারণে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে যায় ইংল্যান্ড।

সোমবার দুবাইয়ে আইসিসি বোর্ড মিটিংয়ের পরে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থাটি জানিয়েছে, এবার থেকে আইসিসি পরিচালিত কোনও টুর্নামেন্টের নকআউট ম্যাচ টাই হলে বাউন্ডারি মারার গণনা করে বিজয়ী দল বাছাই করা হবে না। মূল স্কোর সমান হয়ে গেলে ম্যাচ গড়াবে সুপার ওভারে। সেখানেও যদি টাই হয়, তাহলে আবারও সুপার ওভার অনুষ্ঠিত হবে। এভাবে জয়ী নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত টাইব্রেক চলতে থাকবে।

বোর্ড মিটিংয়ের পর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আইসিসি ক্রিকেট কমিটির সুপারিশ মেনে সুপার ওভার রেখে দেওয়া হচ্ছে টাইব্রেকারের মাধ্যম হিসেবে; কিন্তু একটা পরিবর্তন করা হচ্ছে। আইসিসি আয়োজিত কোনও টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বে যদি সুপার ওভারও টাই হয়ে যায়, তা হলে ম্যাচও টাই হবে। আর সেমিফাইনাল বা ফাইনালে সুপার ওভার টাই হলে আবার একটা সুপার ওভার হবে। এভাবে চলতে থাকবে, যতক্ষণ না পর্যন্ত কোনও একটা দল সুপার ওভারে বেশি রান করে ম্যাচ জিতে নেয়।’ -ডেস্ক