তপন কুমার সরকার (দিনাজপুর২৪.কম) আজ ২৫ বৈশাখ ৮মে’ ১৭ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৬ তম জন্মবার্ষিকী। এ বছর কবিগুরুর স্মৃতি বিজড়িত নওগাঁর পতিসর কাচারী বাড়িতে জাতীয় ভাবে রবীন্দ্রজয়ন্তীর পালন করা হচ্ছে। এ উপলক্ষে নওগাঁ জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় পরিতসরে বিস্তারিত কর্মসূচী হাতে নিয়েছে। কবির নিজস্ব জমিদারী কালিগ্রাম পরগনার কাচাড়ীবাড়ি আত্রাই উপজেলার পতিসরে নেয়া হয়েছে ব্যপক প্রস্তুতি। কবিপুত্র দেবেন্দ্রনাথের নামে নির্মিত “দেবেন্দ্র মঞ্চ” সজ্জিত করা হয়েছে। ছায়া ঢাকা, পাখি ডাকা, নৈসর্গিক সৌন্দর্যমন্ডিত নিভৃত পল্লী পরিতসর কাচাড়ীবাড়ি এবং সংলগ্ন ভবনসমূহে শেষ হয়েছে শেষ মুহুর্তের ধোয়া মোছা ও রং বার্নিশের কাজ। এখন চলছে রং বে রং এর তোরণ নির্মাণের কাজ।
এ বছর পতিসরের রবীন্দ্রজয়ন্তীর এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এ্যাড. আব্দুল হামিদ। যেহেতু কেন্দ্রীয় কর্মসূচী এখানেই উদযাপিত হচ্ছে এবং প্রধান অতিথি হিসেবে আসছেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ সেহেতু এবারের রবীন্দ্র উৎসবে পতিসরে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।  নওগাঁ শহর থেকে ৩৬ কিলোমিটার দুরে আত্রাই উপজেলার নিঝুম-নিস্তব্ধ-নিভৃত পল্লী পতিসর। কবিগুরু রবীন্দ্রানাথ ঠাকুরের একান্ত নিজস্ব জমিদারী ছিল কালীগ্রাম পরগণা। এই পরগনার জমিদারী কার্যক্রম পরিচালিত হতো পতিসর কাচাড়ীবাড়ি থেকে। কবি প্রথম পতিসরে আসেন ১৮৯১ সালে। এরপর থেকে তিনি ১৯৩৭ সাল পর্যন্ত নিয়মিত এই কাচারী বাড়িতে এসেছেন। এখানে বসে রচনা করেছেন অজস্র কবিতা, গান, ছোট গল্প, নাটক এবং উপন্যাস।
মহামান্য রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে এলাকাবাসী, রবীন্দ্র অনুরাগী এবং সাহিত্যিকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা এবং প্রত্যাশার  সৃষ্টি হয়েছে। ইতমধ্যেই নওগা জেলার আত্রাই ও রাণীনগর, বগুড়া জেলার আদমদিঘী ও নন্দীগ্রাম এবং নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলায় শুরু হয়েছে উৎসবের আমেজ। বাড়িতে বাড়িতে এসেছেন আত্মীয়স্বজন। বাবার বাড়িতে এসেছে মেয়ে জামাই আর নানা বাড়িতে এসেছে নাতী নাতনী।  আবাদপুকুর মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ জিএম মাসুদ রানা বলেন, এই প্রথম রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তীর উৎসবে আত্রাই উপজেলার প্রত্যন্ত পল্লী পতিসরে আসছেন রাষ্ট্রপতি। পতিসর এ বছর ব্যাপক পরিচিতি লাভ করবে। রবীন্দ্র স্মৃতি বিজড়িত স্থানসমুহের মধ্যে পতিসর এতোদিন ছিল অবহেলিত। কিন্তু এ বছর রাষ্ট্রপতির আগমনকে ঘিরে এখানকার মানুষের প্রত্যাশা অনেক বেশী। তাঁদের প্রাণের দাবী উঠেছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের। সাথে কৃষকদের ভাগ্যের উন্নয়নে রাষ্ট্রপতি গুরুত্বপূর্ণ এই ঘোষনা দিবেন এমনটায় আশা এখানকার রবীন্দ্র ভক্তদের।
রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে পতিসরসহ আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলায় নেয়া হয়েছে ব্যপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নওগাঁর পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির যাতে কোন অবনতি না ঘটে সে দিকে সার্বক্ষনিক নজর রাখছেন আইন শৃংখলা বাহিনী।
জেলা প্রশাসক ড. আমিনুর রহমান বলেন, রবীন্দ্র উৎসবে মহামান্য রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। এই উৎসবে দু’হাজারেরও বেশী অতিথিদের নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কবির স্মৃতি বিজড়িত বিভিন্ন ধরণের সামগ্রী দিয়ে সাজানোর চেষ্টা করা হয়েছে পতিসর কাচারী বাড়ী।
স্থানীয় সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম বলেন, পতিসরে এই প্রথম মহামান্য রাষ্ট্রপতি আসছেন এই কারণে পতিসর রাণীনগর, আত্রাইসহ গোটা নওগাঁ জেলায় বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। রাষ্ট্রপতির আগমনে আমরা নওগাঁ নিজেদের গর্বিত মনে করছি।
ওই দিন বেলা দু’টায় পতিসর দেবেন্দ্র মঞ্চে প্রথমে রয়েছে আলোচনা ও স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠান। এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন সংস্কৃতি বিষয়ক
মন্ত্রণালয়ের সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান। স্মারক বক্তব্য রাখবেন অধ্যাপক ড. হায়াৎ মামুদ এবং  বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী মুহাঃ ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক এমপি এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম।
পরে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ঢাকা, জেলা শিল্পকলা একাডেমী নওগাঁ, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী আত্রাই ও রাণীনগরের শিল্পীরা স্স্কাংৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবেন।
তপন কুমার সরকার
আত্রাই,নওগাঁ
মোবাইল নং- ০১৭৪০৯৩৩৮২৮