মোঃ নজরুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর বন বিভাগের চরকাই (বিরামপুর) রেঞ্জের অধিন বিরামপুর উপজেলার বিশ্বনাথপুর মৌজায় প্রায় ৩০ বছর বয়সী ১৮৮টি মিনজিরি গাছ কেটে ফেলেছে প্রতিপক্ষরা। এসব কাটা গাছের বেশির ভাগ রাতের আঁধারে তুলে নিয়ে গেলেও শনিবার (১৯ অক্টো:) বাঁকী অংশ উদ্ধার করেছে বন বিভাগ।
চরকাই (বিরামপুর) রেঞ্জ কর্মকর্তা নিশিকান্ত মালাকার জানান, বিশ্বনাথপুর মৌজায় বন বিভাগের ৮.৬০ একর জমিতে প্রায় ৩০ বছর আগে দু’শতাধিক মিনজিরি গাছ রোপন করা হয়। বর্তমানে ঐ সকল গাছ পরিপক্ক কাঠে পরিনত হয়েছে। শুক্রবার বিশ্বনাথপুর গ্রামের নুর ইসলাম ও নুরু মেম্বার গং বন বিভাগের জমিকে নিজেদের দাবি করে লোকজন নিয়ে গাছ কাটতে শুরু করে। এসময় বন বিভাগের বাগান মালি নাছির উদ্দিন বাধা দিতে গেলে লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে তাকে তাড়িয়ে দেয়। দিনভর গাছ কেটে রাতে গাছগুলির বেশির ভাগ ট্রাক যোগে তারা তুলে নিয়ে গেছে। এব্যাপারে নিশিকান্ত মালাকার বিরামপুর থানায় অভিযোগ দিলে শনিবার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিকেলে বন বিভাগের লোকজন অবশিষ্ট গাছ জব্দ করে নিয়ে এসেছে।
বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুর রহমান জানান, এই জায়গা নিয়ে মোকদ্দমায় তিনবার বন বিভাগ রায় পেয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি প্রতিপক্ষগণ ঐ জমিকে নিজের বলে দাবি করলেও তার স্বপক্ষে কোন কাগজ দেখায়নি।
রেঞ্জ কর্মকর্তা নিশিকান্ত মালাকার জানান, গাছ কাটার ব্যাপারে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে। স্থানীয় মুকুন্দপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম গাছ কাটার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। জমির মালিক দাবিদার নুর ইসলাম ও নুরু মেম্বাারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাদের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।