মোঃ নজরুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম) শস্য ভান্ডার খ্যাত দিনাজপুরের খাদ্য উদ্বৃত্ত বিরামপুর উপজেলার বোরো ক্ষেত প্রাকৃতিক দূর্যোগ থেকে রক্ষার লক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠান করা হয়েছে।
সবুজের সমারোহে বাড়ন্ত ফসলের দিগন্ত বিস্তৃত মাঠ দেখে আশাতিত ফলন প্রত্যাশী শত শত চাষী প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে ফসল রক্ষার আশা নিয়ে দোয়া অনুষ্ঠানে যোগ দেন। দিনাজপুরের অন্যতম বৃহত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বিজুল দারুল হুদা কামিল মাদ্রাসা মাঠে সোমবার বাদ আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত এই দোয়া ও বিশেষ মোনাজাতে মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, গভর্নিং বডির সদস্যসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ অংশ গ্রহণ করেন। মোনাজাত পরিচালনা করেন, বিজুল দারুল হুদা কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ডক্টর নূরুল ইসলাম।
এদিকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিকছন চন্দ্র পাল জানান, এবার উপজেলার পৌর এলাকা ও ৭টি ইউনিয়নে ১৬ হাজার ১৩৫ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হলেও রোপন হয়েছে ১৬ হাজার ২শ’ হেক্টর জমিতে। দেশের সেরা সবজি চাষী বিরামপুর উপজেলার মামুদপুর গ্রামের হামিদুর রহমান, কাটলা গ্রামের আনিছুর রহমান ও অন্যান্য কৃষকরা জানান, গত কয়েক বছরের ন্যায় এবারও বোরো মৌসুমে চাহিদা মাফিক বিদ্যুৎ ও সার পেয়েছেন। ধান কাটা মাড়ার মৌসুম পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে কৃষকরা আশাতীত ফলন ঘরে তোলার স্বপ্ন দেখছেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরো জানান, এবার লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে কৃষকরা বোরো রোপন করেছে। কৃষি অফিসের কর্মকর্তাগণ ও মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাগণ ক্ষেত পর্যবেক্ষণ ও চাষীদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। তিনিও প্রত্যাশা করেন, এবার বিরামপুর উপজেলায় বোরো ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।