মো. নজরুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম) বিরামপুরে পিতৃহীন এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের পর ধর্ষক পালিয়ে যাওয়ায় ধর্ষিতা বিয়ের দাবিতে ধর্ষকের বাড়ি গিয়ে বেধড়ক মারপিটের শিকার হয়েছে। এঘটনায় সোমবার (২৮ অক্টোঃ) বিরামপুর থানায় মামলার পর পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে।
মামলা সূত্রে প্রকাশ, বিরামপুর উপজেলার শৈলান গ্রামের আবু বক্করের পুত্র আতাউর রহমান সাদ্দাম (২৫) উপজেলার পিতৃহীন এক কলেজ ছাত্রীর সাথে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। ৪দিন আগে সাদ্দাম ঐ ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে তার ভাগ্নের বাড়ি বিরামপুর আদর্শ পাড়ায় নিয়ে আটকে রেখে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। পরে বিয়ের দাবি প্রত্যাখান করায় ধর্ষিতা ছাত্রীটি রবিবার সাদ্দামের বাড়ি গিয়ে বিয়ের দাবি জানায়। এসময় সাদ্দামের ১ম স্ত্রী, পিতা-মাতা মিলে ধর্ষিতাকে বেধড়ক মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। এঘটনায় বাধ্য হয়ে ঐ ছাত্রী বিরামপুর থানায় এসে পুলিশের সহায়তা চান। পুলিশ তাৎক্ষনিক মামলা রেকর্ড করে আদর্শপাড়া থেকে ধর্ষনে সহায়তার এজাহার নামীয় আসামী মাসুম রানাকে গ্রেফতার করেছে।
বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম, আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে এবং আসামীদের ধরার জোর প্রচেষ্টা চলছে।