আতিউর রহমান (দিনাজপুর২৪.কম) বিরলে মধ্যযুগীয় কায়দায় মা ছেলের উপর পাশবিক নির্যাতনের উভিযোগ উঠেছে। মূমুর্ষূ অবস্থায় গুরুতর আহত মা বিরল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার শহরগ্রাম ইউপি’র চাপাই গ্রামের নিরীহ রিক্সা ভ্যানচালক বিমল চন্দ্র রায়ের স্ত্রী  মিনতী রাণী রায় (৪৫)কে একই গ্রামের প্রভাবশালী মৃত ধীরেন্দ্রনাথের পুত্র প্রদীপ চন্দ্র গং গত ২৬ আগস্ট/১৫ বুধবার বিকালে পূর্ব বিরোধের জের ধরে বাড়ীর ভেতর অনধিকার প্রবেশ করে মারপিট ও বিবস্ত্র করে মধ্যযুগীয় কায়দায় পাশবিক নির্যাতন করে হাতে থাকা শাখা ও গলায় থাকা তুরশীর মালা ছিড়ে ফেলে। আহতর আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে প্রকাশ্যে বিভিন্ন রকমের ভয়ভীতি ও খুন জখম করে লাশ গুম করার হুমকি প্রদর্শন করে বীরদর্পে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। প্রতিবেশীরা মূমুর্ষূ অবস্থায় গুরুতর আহত মিনতী রাণীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এর আগে ২৩ আগস্ট রোববার মিনতী রাণীর ৯ম শ্রেণী পড়–য়া পুত্র সনাতন চন্দ্রকে বাড়ীর নিকট রাস্তায় মারপিটে গুরুতর আহত করে প্রদীপ গংরা। ঘটনায় প্রদীপ গংদের বিরুদ্ধে বিরল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।