(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের বিরলে গাছ থেকে মোস্তারিনা নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে বিরল উপজেলার বিজোড়া ইউনিয়নের একডালা গ্রামের একটি ধান ক্ষেতের আইলে থাকা ইউক্যালিপটাস গাছের ডালের সাথে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। মোস্তারিনা (২০) ওই গ্রামের কাঠমিস্ত্রি মোশারফ হোসেনের স্ত্রী। এলাকাবাসীরা জানায়, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার সূত্র ধরে গত সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় গৃহবধূ মোস্তারিনা। তার পর রাতে অনেক খুঁজেও তাকে পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার ভোরে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় বাড়ির লোকজন এবং এলাকাবাসী। পরে পুলিশকে সংবাদ দেওয়া হলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে বেলা ১১টার দিকে সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

তবে এলাকাবাসীর অনেকের ধারণা মোস্তারিনাকে হত্যার পর একাধিক মানুষ মিলে তাকে গাছে ঝুলিয়ে রেখেছে। কারণ গাছের যে ডালে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় তার ঝুলন্ত দেহ পাওয়া গেছে, কোন অবলম্বন ছাড়া সেখানে উঠে ওড়না বাঁধা অনেকটাই অসম্ভব। এছাড়া ওড়নার একপাশ বাঁধার পর বাকি অংশ দিয়ে গাছে বসে নিজের গলায় প্যাঁচ দেওয়াও কঠিন। একইসঙ্গে নিহতের এক পায়ের সেলোয়ার অনেকটাই তোলা ছিল যা দেখে স্বাভাবিকভাবেই মনে হতে পারে যে, কেউ একজন নিচ থেকে তাকে উঁচু করে তুলে ধরে, আরেকজন গলায় ওড়না জড়িয়ে ঝুলিয়ে দেয়। এছাড়া সাধারণত গলায় ফাঁস দিয়ে কেউ আত্মহত্যা করলে তার মাথাটি সামনের দিকে ঝুঁকে থাকে, এক্ষেত্রে ছিল ঠিক তার বিপরীত। -ডেস্ক