(দিনাজপুর২৪.কম) এক তরুণীকে নগ্ন করে তল্লাশির অভিযোগ উঠছে। ঘটনাটি বস্টন বিমানবন্দরের। জ়াইনাব মার্চেন্ট নামে এক তরুণী বস্টন বিমানবন্দর থেকে ওয়াশিংটন যাচ্ছিলেন। বিমানবন্দরে তাঁকে তল্লাশি করেন ট্রান্সপোর্টেশন সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের আধিকারিকরা।তাঁর অভিযোগ, তল্লাশি চলাকালীন আধিকারিকরা তাঁকে ‘গভীরভাবে’ তল্লাশি করতে চান। তিনি জানান, সেই সময় তাঁর পিরিয়ড চলছিল। কিন্তু তাঁর সেই আবেদনে সাড়া না দিয়ে আধিকারিকরা তাঁকে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে প্যান্ট ও অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করেন। অভিযোগ, তাঁর রক্তমাখা স্যানিটারি প্যাডটিও আধিকারিকরা দেখেন।

জ়়াইনাব মার্চেন্ট হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী। তাঁর অভিযোগ, হিজাব পরায় এর আগেও তাঁকে তল্লাশির শিকার হতে হয়েছে। পাশাপাশি তাঁর আরও অভিযোগ, বস্টন বিমানবন্দরে তিনি যখন গভীর তল্লাশিতে বাধা দিচ্ছিলেন তখন আধিকারিকরা পুলিশে খবর দেওয়ার হুঁশিয়ারিও দেন। এমনকী তাঁর আইনজীবীর সঙ্গেও কথা বলতে দেওয়া হয়নি।

সম্প্রতি হোমিল্যান্ড শাখায় এই ঘটনার বিবরণ দিয়ে অভিযোগ জানানো হয়। সেখানে বলা হয়, গত দু’বছরে জ়াইনাবকে বিমানবন্দরে বিভিন্ন সময় তাঁর ধর্ম, চিন্তাভাবনা, আইএস-এর সঙ্গে সংযোগ আছে কি না বা তাঁর ব্লগের লেখা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়।

তবে এই বিষয়ে ট্রান্সপোর্টেশন সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের এক মুখপাত্র বলেন, “কাউকে দেখে সন্দেহ হলে তাঁকে তল্লাশি করা যেতেই পারে। অনেক ক্ষেত্রে আমরা কোনও তথ্যের ভিত্তিতে তাঁকে তল্লাশি করে থাকি।”

জ়াইনাব মার্চেন্ট বলেন, “যাঁরা তল্লাশি চালিয়েছেন তাঁদের পরিচয় জানতেই চাই। কিন্তু ওঁরা তা জানাতে অস্বীকার করেন। ইউনিফর্মে লাগানো ব্যাজ হাত দিয়ে ঢেকে দেন। ও ঘর থেকে বেরিয়ে যান। আমি আমার লড়াই থামাব না। প্রায় প্রতিদিন এধরনের ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে আমাদের। যা হয় হোক আমি হাল ছাড়ব না।”