(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) নিউলাইট ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং অর্গানাইজেশন নামক সংস্থাটি যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে নিবন্ধিত। যার নং- যুউঅ/দিনাজ-০৭/ সদর-০৫/২০১৭। সেইসাথে সংস্থাটি জয়েন স্টক কোম্পানী থেকেও নিবন্ধিত, যার নং ১১৮৪/২০১৮। এ প্রতিষ্ঠান শুধু আমাদের নয়, এ প্রতিষ্ঠান পুরো দিনাজপুরবাসীর। এ থেকে দিনাজপুরের সকল শ্রেনী পেশার মানুষ উপকৃত হচ্ছে।

২০ মার্চ শনিবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিউলাইট ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং অর্গানাইজেশন এর নির্বাহী পরিচালক মকসেদুল মমিন সরকার।

লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নিবন্ধিত উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে কিছু পত্রিকা ও অনলাইন মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশনের প্রেক্ষিতে প্রতিবাদ জানাতে আমরা এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রতিষ্ঠান দুটির প্রধান আলাদাভাবে তাদের স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে কথা বলেেেছন। এ সময় লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, সংবাদের একটি অংশে জয়েন স্টক কোম্পানির নাম ভাঙ্গানোর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়াও কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের সাথে সমঝোতা স্বাক্ষর সম্পর্কিতও একটি কল্পকাহিনী প্রকাশ করা হয়েছে।

সমঝোতা স্মারকটি ৫ বছরের জন্য স্বাক্ষরিত হলেও সংবাদে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ৩ বছরের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সমঝোতা স্মারকটি বর্তমানেও বহাল থাকলেও সংবাদে তা বাতিলের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার যে অভিযোগ প্রকাশ করা হয়েছে তার পেছনে অভিযোগকারী কারা তা কিন্তু উল্লেখ করা হয়নি। মূলতঃ এমন কোন অভিযোগই নাই।

এ প্রতিষ্ঠানে নিয়মতান্ত্রিকভাবে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়ে জনবল নিয়োগ করা হয়েছে। এ নিয়ে কারও কোন অভিযোগ আমাদের কাছে নেই। সুতরাং এ তথ্যটিও একটি অসত্য তথ্য। তারা বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ দিয়ে সংবাদ পরিবেশিত হয়েছে যা সম্পূর্ণ সত্যের অপলাপ মাত্র। সংবাদের প্রতিটি লাইন অসত্য, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

আমাদের প্রতিষ্ঠানটি জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়ে ক্রমান্বয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। এতে একটি কুচক্রী মহলের গাত্রদাহ সৃষ্টি হয়েছে বলে আমাদের প্রতীয়মান হচ্ছে। তাদের দ্বারা ভূল তথ্য পেয়ে এ সংবাদ পরিবেশিত হয়েছে বলে আমাদের ধারনা। তারা আরো বলেন, একটি কুচক্রী মহল আমাদের সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার হীন উদ্দেশ্যেই ভূল তথ্য দিয়ে এ সংবাদ পরিবেশন করিয়েছে। পাশাপাশি “আইটি ভিশন ট্রেনিং ইন্সটিটিউট” কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান। যার কোড নং- ১৩২৪৫।

প্রতিষ্ঠানটিও জয়েন স্টক কোম্পানি কর্তৃক নিবন্ধিত। যার নিবন্ধন নং- ১৯৩৯/২০১৯। আইটি ভিশন ট্রেনিং ইন্সটিটিউট কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত আরজেএসসি নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠান। এর সাথে সাথে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কোন সম্পর্ক নেই। সুতরাং অর্থনৈতিক দুর্নীতির দায়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করার সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। আর এ প্রতিষ্ঠানটি জন্মলগ্ন থেকে বর্তমান স্থানে রয়েছে। এটি কখনো মডার্ন মোড়ে অবস্থিত ছিলই না।

অথচ সেটি মডার্ণ মোড়ে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। একইভাবে অনুপ্রেরণা কারিগরি যুব নারী উন্নয়ন সংস্থা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে নিবন্ধিত। যার নং যুউঅ/দিনাজ-০৮/সদর-০৬/২০১৭। পাশাপাশি এটি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর থেকেও নিবন্ধিত। যার নিবন্ধন নং জেমবিকা/দিনাজপুর ৪৫৯/২০১৯। প্রতিষ্ঠানটি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত। যার প্রতিষ্ঠান কোড নং- ১৩২৫০। এ প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক নাজনীন আকতার ২০২০ সালে “জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন এবং নিউলাইটের সাথে একটি সমঝােতা স্মারক হয়েছে যা এখনও বহাল রয়েছে। শেষে তারা সকলকে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের অনুরোধ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে অনুপ্রেরণা কারিগরি যুব নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক নাজনীন আক্তার ও ম্যানেজার মোছা: নাজমা পারভিন,নিউলাইট অর্গানাইজেশনের সহকারী পরিচালক মো: মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

– প্রেস ব্রিফিং