প্রবাসী শ্রমিক। পুরোনো ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) মহামারী করোনা ভাইরাসের মধ্যেও চলছে প্রাইভেট সেক্টরে সৌদিকরণের কাজ। চলতি বছরে এখন পর্যন্ত প্রাইভেট সেক্টরগুলোতে সৌদিকরণ হয়েছে ২১.৫৪ শতাংশ। বিগত বছরের এ সময়ে এর পরিমাণ ছিল ২০.৪ শতাংশ। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত এর পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১.৫৪ শতাংশে, যা বিগত বছরের চেয়ে ১.১ শতাংশেরও বেশি। ফলে আগামী দুই থেকে তিন বছরে সৌদি আরবে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বিদেশি শ্রমিক কাজ হারাবেন। সমস্যায় পড়বেন প্রবাসী বাংলাদেশিরাও। আশঙ্কা করা হচ্ছে ৩ লাখেরও বেশি বাংলাদেশিকে আগামী দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে দেশে ফিরে আসতে হতে পারে।

সৌদি আরবের ইস্টার্ন প্রদেশে প্রাইভেট সেক্টরে সবচেয়ে বেশি সৌদিকরণ করা হয়েছে। সেখানে প্রাইভেট সেক্টরের সব কর্মীদের মধ্যে ২৫.১৬ শতাংশ কর্মীই সৌদি নাগরিক। রাজধানীর রিয়াদ প্রদেশে এ সংখ্যাটি ২১.৮৯ শতাংশ, মক্কা প্রদেশে ২১.৪৭ শতাংশ, মদিনায় ১৯.২৭ শতাংশ। বর্তমানে সৌদি আরবে প্রাইভেট সেক্টরে কর্মরত ২১.৫৪ শতাংশ সৌদি নাগরিকের মধ্যে ৬৬.৭৪ শতাংশই সৌদি নাগরিক পুরুষ এবং ৩৩.২৬ শতাংশ সৌদি নারী।

ইতোমধ্যে সৌদি আরবের সব সেক্টরে সৌদিকরণের পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছে সৌদি সরকার। চলতি বছর আরও বেশকিছু সেক্টরে ৭০ শতাংশ সৌদিকরণ বাধ্যতামূলক করেছে দেশটি। প্রাইভেট সেক্টরে সৌদিকরণ করা হলে চাকরি হারাবে লাখো সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশি। এমনিতে মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে পুরো সৌদি আরবের প্রতিটি সেক্টরে চলছে মন্দাভাব। -ডেস্ক