(দিনাজপুর২৪.কম) মহামারী পরিস্থিতি বিবেচনায় আবাসিক গ্রাহকদের বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব মাশুল মওকুফের মেয়াদ ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। বাংলাদেশ অ্যানার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গত বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এর আগে মহামারীর কারণে ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু করে জুন মাস পর্যন্ত বিদ্যুতের আবাসিক গ্রাহকদের বিল পরিশোধে ৫ শতাংশ বিলম্ব ফি মওকুফ করা হয়। সময় বাড়ানোর ফলে আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত ৫ শতাংশ বিলম্ব মাশুল ছাড়াই বিল পরিশোধের সুযোগ পাচ্ছেন গ্রাহকরা।

এ দিকে চলমান মহামারী পরিস্থিতিতেও অতিরিক্ত বিল আসা নিয়ে অভিযোগ এখনো নিষ্পত্তিতে কাজ করছে বলে জানিয়েছে রাজধানী

ও আশপাশের এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণে নিয়োজিত রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) এবং ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো)।

ডেসকো জানায়, অনলাইন এবং হাতে হাতে পাওয়া গ্রাহকদের প্রায় সব অভিযোগ ইতিমধ্যে নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এখন নতুনভাবে কোনো অভিযোগ এলে তা দ্রুত নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে ডিপিডিসি জানায়, অতিরিক্ত বিলের অভিযোগগুলো গ্রাহকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এরপরও কোনো অভিযোগ এলে তা নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এর আগে গত ৫ জুলাই বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. সুলতান আহমেদ বিদ্যুতের সব বিতরণ সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে সংবাদিকরা জুন মাসেও বিদ্যুতের অতিরিক্ত বিল আসার অভিযোগের কথা জানালে সচিব বলেন, ‘অতিরিক্ত বিলের জন্য কোনো গ্রাহককে অতিরিক্ত অর্থ খরচ করতে হবে না। প্রয়োজনে বিলম্ব মাশুল মওকুফের সময় বাড়ানো যায় কিনা সরকার সেটা চিন্তা করছে। এই সময়ের মধ্যে ভুল সংশোধন করা যাবে।’ -ডেস্ক