(দিনাজপুর২৪.কম) আগামী ২৩ জুলাই থেকে বিদেশে গমনের ক্ষেত্রে একটি জিনিস অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে। সেটি হলো করোনা সনদ।

এই কারণে বিদেশগামীদের ১৬টি নির্ধারিত পিসিআর ল্যাব থেকে করোনা পরীক্ষা করাতে অনুরোধ জানিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

শনিবার (১৮ জুলাই) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শুধুমাত্র সরকার অনুমোদিত টেস্টিং সেন্টার থেকেই করোনাভাইরাস পরীক্ষার সার্টিফিকেট গ্রহণযোগ্য হবে। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে করোনাভাইরাসের পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ নিয়ে তবেই বিমানে ওঠা যাবে।

যেসব প্রতিষ্ঠান বিদেশগামীদের করোনাভাইরাসের পরীক্ষার সনদ দেবে:

১. ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ল্যাবরেটরি মেডিসিন এন্ড রেফারেল সেন্টার, ঢাকা

২. ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক হেলথ, ঢাকা

৩. ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ প্রিভেনটিভ এন্ড সোশ্যাল মেডিসিন, ঢাকা

৪. নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতাল, নারায়ণগঞ্জ

৫. শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ, বরিশাল

৬. বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশনাস ডিজিসেস, চট্টগ্রাম

৭. কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ (আইইডিসিআর ফিল্ড ল্যাবরেটরি)

৮. কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ, কুমিল্লা

৯. খুলনা মেডিকেল কলেজ, খুলনা

১০. কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ, কুষ্টিয়া

১১. ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ, ময়মনসিংহ

১২. শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ, বগুড়া

১৩. রাজশাহী মেডিকেল কলেজ, রাজশাহী

১৪. এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ, দিনাজপুর

১৫. রংপুর মেডিকেল কলেজ, রংপুর

১৬. সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, সিলেট

যাত্রার আগে মানতে হবে কয়েকটি শর্ত:

# যাত্রার আগে অন্তত ৭২ ঘণ্টার মধ্যে যাত্রীর পরীক্ষা করাতে হবে। অর্থাৎ ৭২ ঘণ্টার আগে করা পরীক্ষার ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না বা এর আগে নমুনা সংগ্রহ করা হবে না। যাত্রার ২৪ ঘণ্টা আগে অবশ্যই রিপোর্ট সংগ্রহের ব্যবস্থা করতে হবে।

# নমুনা দেয়ার সময় পাসপোর্টসহ যাত্রীদের বিমান টিকেট দেখাতে হবে এবং পরীক্ষার অর্থ পরিশোধ করতে হবে।

# কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট পরীক্ষাগার যে জেলায় অবস্থিত, সেখানকার সিভিল সার্জন অফিসে স্থাপিত পৃথক বুথে যাত্রীদের নমুনা দিতে হবে।

# নমুনা দেয়ার পর থেকে যাত্রার আগে পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট যাত্রীকে আইসোলেশনে থাকতে হবে।

# পরীক্ষার জন্য একটি ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। যারা ল্যাবরেটরিতে গিয়ে নমুনা দেবেন তাদের দিতে হবে ৩৫০০ টাকা। আর বাড়ি থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হলে ৪৫০০ টাকা দিতে হবে। -ডেস্ক