(দিনাজপুর২৪.কম) বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য অপহরণের ঘটনা জাতির জন্য লজ্জাজনক বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন।

শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ড. রিপন বলেন, বিজিবির নায়েক আব্দুর রাজ্জাককে মায়ানমারের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিপি ধরে নিয়ে গেছে। লুঙ্গি পরিহিত নায়েক রাজ্জাককে হাতকড়া পড়া ছবি ছাপা হয়েছে সেদেশের পত্রিকায়। এ চিত্র দেখে লজ্জায় আমাদের মাথা হেট হয়ে আসে।

বিজিবির ডিজির এক বক্তব্যের সূত্র ধরে তিনি বলেন, বিরোধীদলের আন্দোলন চলার সময়ে বিজিবির ডিজি আব্দুল আজিজ বলেছিলো, ‘অস্ত্র থাকে কেন? এটা ব্যবহার করার জন্য।’ আমরাও বিশ্বাস করি, অস্ত্রের ব্যবহার করতে হয় আইনগতভাবে। কিন্তু অস্ত্র হাতে থাকার পরও বিজিবি সদস্যরা অপহৃত হয়। এটা যাতে ভবিষ্যতে না হয়, সেজন্য বিজিবিকে পেশাগতভাবে আরও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে।

এছাড়া ভবিষ্যতে  বিজিবি যেন এমন অপমানজনক অবস্থায় না পড়ে, সেজন্য মায়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে বাংলাদেশের তরফে কড়া বার্তা দেয়ারও দাবি জানান তিনি। একই সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কও যেন বজায় থাকে সেদিকেও খেয়াল রাখার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, দেশের সংঘাত ও রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আমরা রাজনীতিতে সৌহার্দ্য ভ্রাতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে চাই। রমজান উপলক্ষে আমরা সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছিলাম দলের কারাবন্দি নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে। কিন্তু সরকার আমাদের আহ্বানে সাড়া না দেওয়ায় আমরা ব্যথিত।

দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে সরাকারে প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, পবিত্র রমজান সামনে রেখে ভেজাল বিরোধী অভিযান শুরু করতে হবে। রোজা শুরু হলেই বাজারে জিনিস পত্রের দাম বেড়ে যায়। রোজাদারদের রোজাকে সহজ করতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানাই দ্রব্যমূল্য মানুষের নাগালের মধ্যে রেখে সহযোগিতা করুন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক ও যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ দফতর বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, আসাদুল করিম শাহীন, সহ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ। (ডেস্ক)