-ফাইল ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘পিরোজপুরের ঘটনাই প্রমাণ করে দেশের বিচার বিভাগ সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে।’

আজ বুধবার সকালে আদালতে একটি মামলায় হাজিরা দিতে নয়া পল্টনের কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

দুর্নীতির মামলায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে পিরোজপুরের সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) এ কে এম এ আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ মো. আব্দুল মান্নান।

আদেশের সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও আইনজীবীদের বিক্ষোভের মধ্যে ওই বিচারককে বদলির আদেশ আসে। পরে তিনি তার দায়িত্ব দ্বিতীয় যুগ্ম জেলা জজ নাহিদ নাসরিনকে হস্তান্তর করেন।

পরে আসামিপক্ষ আগের আদেশ পুনর্বিবেচনার আবেদন করলে বিকেলেই ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ নাহিদ নাসরিন আবেদন মঞ্জুর করে দুজনকে দুই মাসের জামিন দেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা যে কথাটা সবসময় বলছি, বিচার বিভাগ নিয়ন্ত্রণ করছে সরকার, এটাই তার প্রমাণ। কারণ পিরোজপুর আওয়ামী লীগের সভাপতিকে যখন দুদকের দায়ের করা দুর্নীতির মামলায় ভেতরে বা কাস্টডিতে নিতে বলেছেন আদালত, তখন যে অবস্থার সৃষ্টি করা হয়েছে, বাধ্য করা হয়েছে আদালতকে কয়েক ঘণ্টা পরে জামিন দিতে।’

তিনি বলেন, ‘এই ঘটনা প্রমাণ করে এদেশে আইনের শাসন নেই। এখানে বিচার বিভাগ যে স্বাধীন নয়, সেটা আরেকবার উলঙ্গভাবে প্রমাণিত হলো।’

মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসা প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা যে কথাটা বলছি যে, তার (নরেন্দ্র মোদি) দেশে যেভাবে এনআরসি নিয়ে একটা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করা হচ্ছে, সাম্প্রদায়িক বিভক্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে-সে বিষয়েই আমরা কথা বলছি। বাংলাদেশ সমস্ত রাজনৈতিক দল, সেক্টরগুলো তারা এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন এবং তারা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে তার এই সময়ে আসাটা কতটুকু শোভন সেটাই আমরা প্রশ্ন রেখেছি।’-ডেস্ক