(দিনাজপুর২৪.কম) গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যা প্রশ্রয় দিলে রাষ্ট্রের প্রয়োজনীয়তা শেষ হয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব। আজ মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠনো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে আ স ম রব বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ বাংলাদেশে গুম করার সংস্কৃতি চালু হয়েছে। বাংলাদেশের গুমের ঘটনা বন্ধ করতে হেফাজতে থাকা ‘নিখোঁজ’ ব্যক্তিদের নিরাপদে তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো। মানবাধিকার সংগঠনগুলো অভিযোগ করেছে বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলো সরকারের সমালোচকদের নিশানা করে অব্যাহতভাবে গুমের ঘটনা ঘটিয়ে চলছে। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত রাষ্ট্রে গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যার মতো অপরাধ ক্রমাগত ঘটতে থাকলে এবং তার বিচার না হলে রাষ্ট্রের প্রয়োজনীয়তাই শেষ হয়ে যাবে।

গুম হওয়া ব্যক্তিদের পরিবারগুলো ভয়াবহ সংকটে নিপতিত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মানসিক ও অর্থসংকটে পরিবারগুলো দিশেহারা। আইনগত জটিলতার কারণে সম্পদ থেকেও তারা সম্পদের ব্যবহার করতে পারছে না। স্বজনকে ফিরে পেতে শিশুরা আকুতি জানিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েছে কিন্তু রাষ্ট্র নিষ্পাপ শিশুদের হাহাকারে কোন সাড়া দিচ্ছে না।

অথচ সরকার সত্যকে বারবার অস্বীকার করে যাচ্ছে। বরং রাষ্ট্র গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডকে দিনের পর দিন দায় মুক্তি দিয়ে যাচ্ছে। এ সর্বনাশা নীতি চলতে থাকলে সমাজ ক্রমাগত বর্বরদের দখলে চলে যাবে।
গুমের শিকার নিখোঁজ ব্যক্তিদের অবিলম্বে খুঁজে বের করার জন্য তিন দফা প্রস্তাবনা পেশ করা হয় জেএসডির পক্ষ থেকে। প্রস্তাবনাগুলো হল (১) বিচার বিভাগের নেতৃত্বে ‘স্বাধীন ও নিরপেক্ষ কমিশন’ গঠন করতে হবে। (২) গুম ও অপহরণের সঙ্গে যুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। (৩) গুমের শিকার ব্যক্তিদের পরিবারের যথাযথ পুনর্বাসন করা এবং তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। -ডেস্ক