(দিনাজপুর২৪.কম) প্রতিবাদ বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করলেন জর্ডানের প্রধানমন্ত্রী হানি মুলকি। সোমবার তাকে তলব করেন জর্ডানের বাদশা আবদুল্লাহ। তিনি তাকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। ফলে প্রধানমন্ত্রী পদ ত্যাগ করেন হানি মুলকি। সরকারি একটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা এএফপি বলেছে, সোমবার বিকালে হুসেইনিয়া প্যালেসে বাদশার স্েঙগ সাক্ষাত করেন হানি মুলক। এরপর তার কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন। বাদশা তা গ্রহণ করেছেন। আয়কর বাড়ানো ও কড়াকড়ি আরোপের প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ হয়। অনেক বছরের মধ্যে এই বিক্ষোভ ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ ও তীব্র। বিক্ষোভকালে সরকার বিরোধী স্লোগান দেয় অংশগ্রহণকারীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে তখন কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পুলিশ। বন্ধ করে দেয় বিভিন্ন সড়ক। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল আইএমএফ সমর্থিত নতুন আয়কর বিল দেশের গরিব ও মধ্যম শ্রেণির মানুষের জীবনে দুর্বিষহ কষ্ট ডেকে আনবে। এ নিয়ে টানা চার রাত বিক্ষোভ অব্যাহত থাকে। এ সময়ে আটক করা হয় কয়েক ডজন বিক্ষোভকারীকে। আহত হয়েছে নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনীর ৪০ জনেরও বেশি সদস্য। তবে বিক্ষোভ জোরালো হলেও হানি মুলক আয়কর বিষয়ক ওই বিল বাতিল করতে অস্বীকৃতি জানান। তিনি বলেন, এটি বাতিল করা বা না করার এক্তিয়ার পার্লামেন্টের। তার মতে, সরকারের জনসেবায় অর্থ প্রয়োজন। সেই অর্থের যোগান দিতে এই বিল প্রয়োজন। এই বিলের কারণে যে যত বেশি আয় করবেন তাকে তত বেশি আয়কর দিতে হবে। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা আশঙ্কা করেন, এ বিলের ফলে জীবনের মান নষ্ট হয়ে যাবে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে জর্ডানে পণ্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই তুলনায় বেতন বাড়ে নি। হানি মুলক ২০১৬ সালের জুনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। তিনি সাবেক একজন কূটনীতিক ও মন্ত্রী। তার পিতা জর্ডানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ফাউজি মুলকি। -ডেস্ক