(দিনাজপুর২৪.কম)  জয়পুরহাট সদর উপজেলার ভুটিয়াপাড়া সীমান্তের দূগর ক্যাম্প এলাকায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে পাঁচ বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।  আহতদের জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আহতরা হলেন-সদরের পশ্চিম রামকৃষ্ণপুর গ্রামের আ. বারিকের ছেলে সায়েম (৩৫), একই উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের কৃষ্ণ মার্ডির ছেলে পরিমল মার্ডি, একই গ্রামের খালেকুলের ছেলে ফারুক হোসেন (২৮), আনোয়ার হোসেনের ছেলে আবু জাফর বিদ্যুৎ (২০) ও শ্রী কৃষ্টের ছেলে নির্মল চন্দ্র (৩৫)। বিজিবির ভুটিয়াপাড়া ক্যাম্প ও হাসপাতালে ভর্তি আহতরা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভুটিয়াপাড়া সীমান্তের দূগর এলাকার জিরো পয়েন্টের একটি খালে স্থানীয় দুই যুবক মাছ ধরতে যান। এ সময় বিএসএফ তাদের ধাওয়া করলে তারা দ্রুত গ্রামের ভেতর চলে আসেন। পরে ক্ষিপ্ত বিএসএফ সদস্যরা তাদের পিছু নিয়ে অন্তত ৪শ’ গজ গ্রামের ভেতর প্রবেশ করে এলোপাথাড়ি গুলি ছোড়ে। এ সময় পায়ে, পেটে ও পিঠে গুলিবিদ্ধ হন ওই পাঁচজন। হাসপাতালে ভর্তি আহত আবু জাফর বিদ্যুৎ জানান, প্রায় ৩০/৩৫ জন বিএসএফ সদস্য আকস্মিকভাবে গ্রামের ভেতর প্রবেশ করে তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় এবং পরপর ৮-১০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে।  জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) সাইদুর রহমান জানান, আহতদের মধ্যে সায়েম পেটে ও পায়ে গুলিবিদ্ধ হওয়ায় তাকে গুরুতর অবস্থায় বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেকে) হাসপাতালে স্থানাস্তর করা হয়েছে।
এ ঘটনার পর জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুর রহিম ও পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম হাসপাতালে ভর্তি আহতদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নিয়েছেন।
বিজিবি জয়পুরহাট-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুর রাজ্জাক তরফদার এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। -ডেস্ক