চন্দন কুমার মিত্র (দিনাজপুর২৪.কম) গত ১২ আগষ্ট বুধবার সকাল আনুমানিক ৯ ঘটিকার সময় স্থানীয় প্রভাবশালী বিএনপি নেতা শাহীন ও তুহিন নামের ব্যক্তি সরকারি কোন অনুমতি ছাড়াই চামড়া ব্যবসায়ী মালিক সমিতির অনুমতির কথা বলে লালবাগ মাঠ সংলগ্ন বাধেঁর পাশের ৫টি কাঁঠালগাছ কেঁটে নিয়ে গেছে এবং আরো কিছু গাছ কাটার প্রক্রিয়া চলছিল। পরবর্তীতে ডিএসবি’র একজন কর্মকর্তা কাওছার আহম্মেদ উক্ত স্থানে এসে গাছ কাঁটা দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানতে পারে যে, ৫টি কাঁঠাল গাছ শাহীন ও তুহিন কেটে নিয়ে গেছে। পরে উক্ত কর্মকর্তা চামড়া ব্যবসায়ীর সভাপতি বাবুল সাহেবের সাথে কথা বললে তিনি জানান এসব তিনি কিছু জানেন না এবং তাদের কোন ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে কোন অনুমতিও দেওয়া হয়নি। ইতিমধ্যে স্থানীয় লোকজন বাঁধা দিলে তিনি তাদেরকে ক্ষমতার জোর দেখিয়ে বলেন, আপনাদের কিছু করার থাকলে করেন আমি গাছ কেটে নিয়ে যাব। এছাড়াও তিনি দিনের পর দিন উক্ত স্থানে ময়লার বিশাল স্তুপ করে পরিবেশকে দূষিত করে তুলছে। এই ময়লা আবর্জনার কারণে শুধু পরিবেশই দূষিত হচ্ছে না সেইসাথে ময়লা আবর্জনার দূর্গন্ধে উক্ত স্থানে বসবাসকারী মানুষের জীবন অসহনীয় হয়ে উঠেছে। স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে আরো জানা যায় যে, পূর্বেও উক্ত স্থানের ময়লা আবর্জনার বিষাক্ত গ্যাসের বিষক্রিয়ায় বেশ কিছু শিশু মারাক্তভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। তদবিষয়ে স্থানীয় জনগণ পৌরসভা এবং প্রশাসনকে বারবার অবগত করেও কোন সুরাহা দেখতে পায়নি বলে মন্তব্য করেন। উক্ত ব্যক্তি শাহিন ও তুহিন অত্র এলাকায় দিনের পর দিন এভাবে অবাদে ময়লা আর্বজনা ফেলে অবাদে গাছ কেটে পরিবেশ ও মানুষের জীবনকে এক ভয়ঙ্কর হুমকীর মুখে ঠেলে দিচ্ছে। তাই জনগণের প্রত্যশা অত্র এলাকার পরিবেশকে রক্ষা করা এবং তাদেরকে সুন্দর এবং সুস্থভাবে বেঁেচ থাকার প্রয়াশে প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছে। সেই সাথে যারা এ অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত এবং মানুষের বেঁচে থাকাকে অসহনীয় করে তুলছে তাদের আইনের আওতায় বিচারের দাবী জানান।