(দিনাজপুর২৪.কম) দেশে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় সাধারণ ছুটি আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এতে বলা হয়েছে, জরুরি প্রয়োজনের অফিসসমূহ খোলা রাখা যাবে। প্রয়োজনে ওষুধশিল্প, উৎপাদন ও রপ্তানিমুখী শিল্পকলকারখানা চালু রাখতে পারবে।

এছাড়া মানুষের জীবন জীবিকার স্বার্থে রিকশা-ভ্যানসহ যানবাহন, রেল, বাস পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয় প্রজ্ঞাপনে। তবে ঠিক কবে থেকে গণপরিবহন চালু হবে তা বলা হয়নি।

করোনা ভাইরাসের বিস্তৃতি রোধে মঙ্গলবার দেশের জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সে সচিবালয় থেকে যুক্ত ছিলেন, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ও মন্ত্রিপরিষদ সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এসময় করোনা পরিস্থিতির খোঁজখবর নেয়ার পাশাপাশি, এটি নিয়ন্ত্রণে ও দেশের কর্মহীন মানুষের সহায়তায় জেলাপ্রশাসকদের নানা নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনা পরিস্থিতির কারণে তিনি চলমান সাধারণ ছুটি ৪ এপ্রিল থেকে বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল করারও নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশের সঙ্গে ১০ ও ১১ এপ্রিলের সাপ্তাহিক ছুটি যুক্ত করে আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়িয়ে বুধবার বিকেলে প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনে জরুরি প্রয়োজনে অফিস খোলা রাখা এবং উৎপাদন ও রপ্তানিমুখী কারখানাগুলো খোলা রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। মানুষের জীবন জীবিকার স্বার্থে পর্যায়ক্রমে রিক্সা, ভ্যান, বাস ও রেলপথ চালু করা হবে বলে উল্লেখ করা হয় প্রজ্ঞাপনে।

এদিকে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি হওয়া অপর এক প্রজ্ঞাপনে, জনসমাগম পরিহারের জন্য আসন্ন পহেলা বৈশাখ নববর্ষ উপলক্ষে দেশের সব ধরনের অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়। তিন পার্বত্য জেলার বৈসাবী উৎসবও বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয় প্রজ্ঞাপনে। -ডেস্ক