(দিনাজপুর২৪.কম) সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়াকে রপ্তানি না করার শর্তে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনা টিকার অনুমতি দিয়েছে ভারত। সেরাম থেকে বাংলাদেশের জন্য বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের কেনা টিকা পাওয়া নিয়ে তাই তৈরি হয়েছে সংশয়। তবে বাংলাদেশ সঠিক সময়েই টিকা পাবে বলে জানিয়েছে বেক্সিমকো।

বেক্সিমকোর চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) রাব্বুর রেজা বলেন, ‘আমরা যা বুঝতে পারছি তা হলো, ওই বিবৃতিটি সার্বজনীন। আমরা বিশ্বাস করি যে, আমরা অগ্রাধিকারের তালিকায় রয়েছি এবং যথাসময়েই টিকা পাব।’

তিনি বলেন, ‘বেক্সিমকো ও সেরাম ইনস্টিটিউটের মধ্যে করা চুক্তিতে উল্লেখ রয়েছে যে, স্থানীয় অনুমোদনের পর (বাংলাদেশ অনুমোদন দিলে) সেরাম ইনস্টিটিউট এক মাসের মধ্যেই প্রথম ধাপের টিকা সরবরাহ করবে। আমরা যথাসময়েই টিকা পাব বলে আশা করছি।’

টিকা রপ্তানিতে ভারত নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পর বেক্সিমকো সেরামের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে কি না- এমন প্রশ্নে বেক্সিমকোর এ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আমরা সেরামের যাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি, তারা জানিয়েছেন যে, তারা এখনো সরকার কিংবা সেরামের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো ধরনের নির্দেশনা পাননি।’

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনা টিকা ভারতে উৎপাদন করছে সেরাম ইনস্টিটিউট। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এ করোনা টিকার ভারতীয় সংস্করণের নাম দেওয়া হয়ে ‘কোভিশিল্ড’। টিকাটি চূড়ান্ত অনুমোদন পাওয়া পর এটির তিন কোটি ডোজ সংগ্রহের জন্য গত ৫ নভেম্বর ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া ও বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করেছে সরকার।

গতকাল রোববার ভারতের ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই) সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড এবং ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনের জরুরি ব্যবহারের অনুমোদনের দিয়েছে। ভারতে ভ্যাকসিন অনুমোদন দেওয়ায় বাংলাদেশও ভ্যাকসিন প্রাপ্তিতে আরও অগ্রসর হয়েছে বলে ধারণা করা হয়েছিল।

এদিকে, গতকাল রোববার বার্তা সংস্থা এপিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আদার পুনাওয়ালা বলেছেন, ‘ভারতীয় কর্তৃপক্ষ টিকাটি জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু, তারা শর্ত দিয়েছে যে দেশটিতে ঝুঁকিতে রয়েছেন এমন জনগোষ্ঠীর জন্যে টিকা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত সেরাম ইনস্টিটিউট তা রপ্তানি করতে পাবে না। খোলা বাজারে টিকা বিক্রি না করার শর্তও দেওয়া হয়েছে। এই মুহূর্তে আমরা শুধু ভারত সরকারকে ভ্যাকসিন দেবো।’ -ডেস্ক