এম.এ.সালাম, হেড অব নিউজ (দিনাজপুর২৪.কম) এ যেন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হওয়ার মত ঘটনা। নাম একই হওয়ার সুযোগে অমুক্তিযোদ্ধা-মুক্তিযোদ্ধার পরিচয়ে চাঁদাবাজি করছে অবিরত। এই ন্যাক্কারজনক ঘটনায় বিব্রত খোদ মুক্তিযোদ্ধারা। চেয়েছেন আইনী সহায়তা। তাই কুল কিনারা না পেয়ে ভুক্তভোগী যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে দিয়েছেন লিখিত অভিযোগ।
দিনাজপুর নিমতাড়া আনন্দসাগর এলাকার মৃত মফিজ উদ্দীনের পুত্র যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুর আলীর নাম ব্যবহার করে দিনাজপুর শহরস্থ বালুয়াডাঙ্গা এলাকার ইয়াকুব আলীর পুত্র মোঃ মনসুর রহমান মসলেম অমুক্তিযোদ্ধা হয়েও একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার নাম প্রায়ই একই রকম হওয়ায়, তার নাম ব্যবহার করে সরকারি-আধা সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে চাঁদাবাজী করছে মর্মে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধালীগ দিনাজপুর জেলা শাখা। এই ঘটনায় দিনাজপুরের সকল মুক্তিযোদ্ধা সহ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা শ্রী সহদেব চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আজিজুল হক মন্ডল স্থানীয় একটি পত্রিকা অফিসে এসে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা দিনাজপুর শহরস্থ বালুয়াডাঙ্গা এলাকার ইয়াকুব আলীর পুত্র মোঃ মনসুর রহমান মসলেম সে কোন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নন। আমাদের একজন প্রকৃত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুর আলী, তার মুক্তিবার্তা নং-০৩০৮০১০০৪০, ৭মার্চ-১৯৯৯, গেজেট নং-৩৭৬, তারিখ- ৫ জুন’ ২০০৫। নাম একই হওয়ায় মোঃ মনসুর রহমান মসলেম প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা সেজে-নাম ব্যবহার করে শরীরে মুক্তিযোদ্ধা ব্যাচ ধারণ করে, ভিজিটিং কার্ড তৈরি করে নিজের বাড়ীতে সাইন বোর্ড লাগিয়ে দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় জমি জায়গা দখল, সরকারি অফিসগুলোতে চাঁদাবাজী এবং মুক্তিযোদ্ধা ব্যানারে সাধারণ মানুষকে হয়রানি সহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা মুক্তিযোদ্ধারা দেশের সূর্য সন্তান। আমাদের নাম বদনাম করেছে ঐ কথিত অমুক্তিযোদ্ধা মনসুর রহমান মসলেম। মুক্তিযোদ্ধা নেতারা দিনাজপুর পুলিশ সুপার সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিকট প্রতারক অমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুর রহমান মসলেমের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবী জানান। ভুক্তভোগী যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুর আলী এ প্রতিনিধিকে জানান, অমুক্তিযোদ্ধা প্রতারক মনসুর রহমান মোসলেমের বিরুদ্ধে মুখ খুললে কিংবা গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার করলে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে। দিনাজপুর শহরস্থ বালুয়াডাঙ্গা এলাকার ইয়াকুব আলীর পুত্র প্রতারক অমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি প্রথমে বলেন আমি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবার কিছুক্ষণ পর উত্তেজিত হয়ে বলেন আমি মুক্তিযোদ্ধা না। সে উপস্থিত সাংবাদিকদের তার মুক্তিযোদ্ধার কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। দিনাজপুরের মুক্তিযোদ্ধারা যত সম্ভব ঐ কথিত প্রতারক অমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনসুর রহমান মসলেমের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানান।