(দিনাজপুর২৪.কম) অবশেষে বাংলাদেশে সম্প্রচার বন্ধ হতে চলেছে সব ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেলের। এরই মধ্যে বাংলাদেশের সব জায়গায় ভারতীয় জি নেটওয়ার্কের সব চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ হয়েছে। আজ মঙ্গলবার এ চ্যানেলগুলো দেখা যাচ্ছে না বলে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের দর্শকরা জানিয়েছেন।

কয়েকটি ক্যাবল টেলিভিশন অপারেটরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তথ্য মন্ত্রণালয়ের জারি করা এক নির্দেশনার পর এই পদক্ষেপ নিয়েছেন তারা। ক্যাবল অপারেটর প্রতিষ্ঠান জাদু ডিজিটালের কাস্টমার সার্ভিস কর্মকর্তা শামীমা মিতু জানান, তথ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে জি নেটওয়ার্কের চ্যানেলগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশ ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস এম আনোয়ার পারভেজ জানান, বর্তমানে জি নেটওয়ার্কের সব চ্যানেল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। অন্য আরো যেসব চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন প্রচারিত হয় সেসব চ্যানেলও শিগগির বন্ধ হয়ে যাবে।

কত সময়ের জন্য এই বন্ধ কার্যক্রম বলবৎ থাকবে এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোনো বাঁধা ধরা সময় নেই। একেবারে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেয়া হবে। বাংলাদেশে আর ভারতীয় চ্যানেল দেখা যাবে না। এখন থেকে শুধু বাংলাদেশি চ্যানেল দেখতে পারবে দেশের মানুষ।
তবে এ অবস্থায় ক্যাবল নেটওয়ার্কের সাবস্ক্রাইবার কমে যাবে বলেও তিনি মনে করছেন। এভাবে কতদিন ব্যবসা টিকিয়ে রাখা যাবে তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন তিনি।

ক্যাবল অপারেটররা জানান, তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে গতকাল সোমবার জি নেটওয়ার্কের চ্যানেলগুলো বন্ধে তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়। এরপরই সারা দেশে জি টিভি, জি বাংলা, জি বাংলা সিনেমা, জি সিনেমা ও জিং, জি অ্যাকশন, জি বলিউডসহ এই নেটওয়ার্কের সব টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এদিকে এ ব্যাপারে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব ফিরোজ খান জানান, মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চ্যানেলগুলো বন্ধ করতে বলা হয়নি। ক্যাবল অপারেটরদের কাছে এসব চ্যানেলে বাংলাদেশি বিজ্ঞাপন সম্প্রচার হচ্ছে কি না তা জানাতে বলা হয়েছে। বিষয়টি সাতদিনের মধ্যে জানাতে ক্যাবল অপারেটরদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তবে এর আগে তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব আবদুর রাজ্জাক জি নেটওয়ার্কের চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। অবশ্য তিনি এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি।

ডাউনলিংকৃত ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন প্রচারের কারণে তথ্য মন্ত্রণালয় সম্প্রতি কড়া অবস্থান নেয়। ২০১৭ সালের ২ জানুয়ারি তথ্য মন্ত্রণালয় এ নিষেধাজ্ঞা দিলেও ২০১৯ এর ১ এপ্রিল এসে তা কার্যকর হয়।

বাংলাদেশে যেসব বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেল দেখানো হয় সেগুলোতে দেশি পণ্যের বিজ্ঞাপন বন্ধের দাবি জানিয়ে অনুষ্ঠান নির্মাতা, শিল্পী, বিজ্ঞাপন নির্মাতারা বেশ কিছুদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন।

ভারতীয় চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন প্রচারের কারণে বাংলাদেশী টেলিভিশন চ্যানেলগুলো ক্ষতির মুখে পড়েছিল। সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ফলে টেলিভিশন চ্যানেল ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। -ডেস্ক